• মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪৩১

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে: রাষ্ট্রপতি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা নেই: প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন

পুলিশের ধাওয়ায় ককটেল ভর্তি বালতি রেখে পালিয়ে গেলো দুষ্কৃতীরা

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০২৪  

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ মাদারীপুরে পাঁচটি ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (৯ মার্চ) বিকেলে সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের বড়মেহের এলাকার কেরামত আলী মীরের ঘর থেকে এগুলো উদ্ধার করা হয়। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা থেকে বোম ডিসপোজাল একটি ইউনিট এসে সেসব নিস্ক্রিয় করে।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এদিন দুপুরে সদর উপজেলার ঝিকরহাটিতে স্থানীয় আধিপত্য নিয়ে এনামুল দর্জি এবং ইকবাল দর্জি গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। একপর্যায়ে হাতবোমা ও ককটেল বিস্ফোরণ শুরু হয়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ।

পরে মহাসিন মীর, সজল মীর ও এনামুল দর্জিসহ ১০ থেকে ১২ জন ককটেলের বালতিসহ দৌড়ে পালাচ্ছিল। সেসময় পুলিশ ধাওয়া দিলে বালতিটি কেরামত আলী মীরের ঘরে রেখে পালিয়ে যায় তারা। ওই ঘর থেকেই বালতিতে থাকা পাঁচটি তাজা ককটেল উদ্ধার করে পুলিশ।

তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি তারা। এরপর খবর দিলে ঢাকা থেকে একটি বোম ডিসপোজাল ইউনিট এসে রাত সাড়ে ৯টার দিকে বড়মেহের এলাকায় ককটেলগুলো নিস্ক্রিয় করে।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএইচএম সালাউদ্দিন বলেন, বালতিতে ভরা পাঁচটি তাজা বোমা উদ্ধার করে তা নিস্ক্রিয় করা হয়েছে। যারা বোমাগুলো রেখে পালিয়ে গেছে তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে। সেসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।