• সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৯ ১৪৩১

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে: রাষ্ট্রপতি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা নেই: প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন

অনেকদিন পর এসি চালানোর আগে যা খেয়াল রাখবেন

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

শীতের বিদায় এবং গরমের আগমন। সূর্যের তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়া জানান দিচ্ছে তারই। তবে এখনো এসি চালিয়ে রাখার মতো গরম না হলেও খুব শিগগির এসি ব্যবহার শুরু করবেন। তবে গত তিন চার মাস এসি বন্ধ থাকায় বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে।

এয়ার কন্ডিশনার গ্রীষ্মের তাপ গ্রহণের জন্য প্রস্তুত না হয়, তাহলে এয়ার কন্ডিশনার মেরামত পর্যন্ত করতে হতে পারে। এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট চালানোর আগে এর কিছু আগাম প্রস্তুতি নেওয়া অপরিহার্য। গ্রীষ্মের জন্য এসির সিস্টেম প্রস্তুত করতে কয়েকটি সহজ জিনিস মনে রাখা উচিত। জেনে নিন সেসব-

ইউনিট বন্ধ করা
এয়ার কন্ডিশনার ইউনিটে কিছু করা শুরু করার আগে সর্বদা সার্ভিস প্যানেলে কনডেন্সারের পাওয়ার বন্ধ করা উচিত। ইউনিটের কাছাকাছি ২৪০ ভোল্টের ওয়েদারপ্রুফ ডিসকানেক্টিং বক্স থাকে, যেখানে সাধারণত একটি লিভার, সুইচ বা ফিউজ থাকে। ইউনিটে এটি না থাকলে, সার্কিট ব্রেকার ব্যবহার করে পাওয়ার বন্ধ করা যেতে পারে।

ফিল্টার পরিষ্কার করে নিন
নিয়মিত পরিষ্কার করা বা ধুলাযুক্ত ফিল্টার রিসেট করে তবেই তা ব্যবহার করা উচিত। আদর্শ ভাবে এয়ার কন্ডিশনার সিস্টেমকে ঠিক রাখতে কমপক্ষে প্রতি ছয় মাস পর পর এটি পরিষ্কার করা দরকার। এয়ার ফিল্টার অনেক কিছুর উপর নির্ভর করে। যেমন-

১. এয়ার কন্ডিশনার ইউনিটের বয়স
২. বাড়ির আশপাশের বাতাসের গুণমান
৩. বাড়িতে থাকা কোনও পোষ্য
৪. অ্যালার্জি
৫. মরশুম

কনডেন্সার কয়েল পরিষ্কার করুন
কনডেন্সার কয়েলগুলো বাড়ির ভেতর থেকে বাইরের তাপ স্থানান্তর করে বাড়িকে ঠান্ডা রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কয়েলে ময়লা জমে গেলে এটি ঘর ঠান্ডা রাখবে না। কনডেন্সার কয়েলকে ঢেকে রাখা কোনো ময়লা, ধুলা পরিষ্কার করতে ব্রাশ বা ভ্যাকুয়াম ব্যবহার এড়িয়ে চলা উচিত। এতে কয়েলের ক্ষতি হতে পারে।

ইউনিট থেকে ময়লা পরিষ্কার করা
যদি এয়ার কন্ডিশনার ইউনিটটি বন্ধ হয়ে থাকে এবং কয়েক মাস ধরে অচল হয়ে পড়ে থাকে, তবে এতে ধুলা জমা হতে পারে। এই ধুলা এয়ার কন্ডিশনার ইউনিটে বায়ু সরবরাহ হ্রাস করতে পারে। এয়ার কন্ডিশনার ইউনিটটি বন্ধ থাকার সময় এর উপর একটি কভার রাখা উচিত।

কুল্যান্ট লাইন পরীক্ষা করা
অনেক ক্ষেত্রে এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট ঘর ঠান্ডা করার শক্তি হারিয়ে ফেলে, এটি কুল্যান্ট লাইন বা তাদের চারপাশের বাধার কারণে হতে পারে। এই লাইনগুলো ভিতরের কয়েলটিকে কনডেন্সার ইউনিটের সঙ্গে সংযুক্ত করে এবং এতে কুল্যান্ট থাকে। যা ঘরকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। কুল্যান্ট লিক এয়ার কন্ডিশনার ইউনিটের ক্ষতি করতে পারে এবং এতে বিদ্যুৎ বিল অনেকটাই বেড়ে যায়।

ইউনিট পরীক্ষা করা
একবার এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট পরিষ্কার করা শেষ হলে, এটি সঠিক ভাবে কাজ করছে কি না, তা নিশ্চিত করতে এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট পরীক্ষা করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটি শুকিয়ে গেলে পাওয়ারটি আবার চালু করে দেখে নিতে হবে, তারপর ব্যবহার করা যেতে পারে।