• মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪৩১

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে: রাষ্ট্রপতি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা নেই: প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন

ফ্রিজে যে ৪ খাবার রাখা ক্ষতিকর

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

ফ্রিজে খাবার রাখা হয় তা ভালো রাখার জন্য। তবে শুধু রাখলেই চলবে না, সঠিক খাবার সঠিকভাবে সংরক্ষণ করতে হবে। কিছু খাবার আছে যেগুলো ফ্রিজে রাখা ক্ষতিকর। কিন্তু আমরা না জেনেই অনেক সময় সেগুলো ফ্রিজে রেখে দিই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ৪টি খাবার ফ্রিজে রাখলে তা বিষাক্ত হয়ে যেতে পারে। সেখান থেকে হতে পারে আপনার শরীরের কোনো ক্ষতির কারণ।

৪টি খাবার রয়েছে যেগুলো ফ্রিজে সংরক্ষণ করার ফলে রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটে, যা স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ হয়ে দাঁড়ায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, হিমায়নের প্রক্রিয়া চলাকালীন, নির্দিষ্ট কিছু খাবার সেগুলোতে থাকা প্রয়োজনীয় পুষ্টি হারায়। শুধু তাই নয়, খাবারের রঙ, স্বাদ এবং টেক্সচারও প্রভাবিত হয়। এই সমস্ত কারণে খাবারটি অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায়। চলুন জেনে নেওয়া যাক কোন ৪টি খাবার ফ্রিজে রাখা ক্ষতিকর-

১. রসুন

রসুন বোটুলিজম-সৃষ্টিকারী স্পোরকে আশ্রয় দেয় বলে পরিচিত, যেগুলো খাদ্য আইটেম ঠিকভাবে সংরক্ষণ করা না হলে সক্রিয় হয়। যেকোনো সময় আর্দ্রতা ৬০% এর বেশি হয়ে গেলে এটি বাড়তে শুরু করে। বিশেষজ্ঞের মতে, রেফ্রিজারেটরগুলো ৬০% এর বেশি আর্দ্র হতে থাকে। ফ্রিজে রসুন সংরক্ষণ করলে তা অঙ্কুরিত হতে পারে এবং মাইকোটক্সিন নামে পরিচিত বিষাক্ত যৌগের বৃদ্ধি ঘটাতে পারে, যা স্বাস্থ্যের গুরুতর অবস্থার কারণ হতে পারে।

২. পেঁয়াজ

পেঁয়াজ কম তাপমাত্রায় প্রতিরোধী। এটি অল্প তাপমাত্রায় রাখলে তা অংকুরিত হতে শুরু করে। একটি কাটা পেঁয়াজ ফ্রিজে রেখে দিলেও সমস্ত ব্যাকটেরিয়া শুষে নিতে পারে, ফলে এটি খাওয়ার অযোগ্য হয়ে পড়ে। তাই বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দেন, হয় পুরো পেঁয়াজ ব্যবহার করুন বা অবশিষ্টাংশ ফেলে দিন।

৩. আদা

অনেকটা রসুনের মতো, আদাও ফ্রিজে রাখলে ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে। বিশেষজ্ঞের মতে, ফ্রিজে আদা রাখলে তাতে সবুজ ছত্রাক তৈরি করতে পারে। যা ওক্র্যাটক্সিন এ তৈরি করে। এটি একটি সাধারণ খাদ্য-দূষিত মাইকোটক্সিন। বেশ কয়েকটি গবেষণা অনুসারে, এই দূষণ কিডনি এবং লিভারের সমস্যার সঙ্গে সম্পর্কিত এবং সামগ্রিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকেও প্রভাবিত করে।

৪. ভাত

ফ্রিজে ভাত সংরক্ষণ করা এখন একটি সাধারণ অভ্যাস হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু অভ্যাস আপনার জন্য ক্ষতিকর। ফ্রিজে ভাত রাখলে তাতে স্টার্চের মাত্রা বেড়ে যায়। সেইসঙ্গে এটি আপনার কোলেস্টেরল এবং রক্তে শর্করার মাত্রাকেও প্রভাবিত করে। বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন, সর্বোত্তম অভ্যাসটি হলো ভাত ২৪ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে ফ্রিজে সংরক্ষণ না করা এবং খাওয়ার আগে তা পুনরায় গরম করে খাওয়া।