• সোমবার ০৪ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪৩০

  • || ২২ শা'বান ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
আব্দুল কাদের জিলানীর (র.) মাজার জিয়ারতে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ নির্বাচনে যথাযথ দায়িত্ব পালন করায় ডিসিদের ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রীর ভোক্তাদের যেন হয়রানি হতে না হয়, সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে বাজারে নজরদারি-মজুত ঠেকাতে ডিসিদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর শান্তিরক্ষা মিশনে অবদান রেখে সুনাম বয়ে আনছে সশস্ত্র বাহিনী যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে বেইলি রোডে অগ্নিকান্ড কবলিত ভবনে ফায়ার এক্সিট না থাকায় হতাশ নতুন নতুন অপরাধ দমনে পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ ‘কোনো একটি জিনিস না খেলে রোজা হবে না, এ মানসিকতা পাল্টাতে হবে’ পণ্যমূল্য সহনীয় রাখতে সরকারের পাশাপাশি জনগণেরও নজরদারি চাই

স্ত্রীকে নিয়ে দুই স্বামীর দ্বন্দ্ব, অতঃপর...

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১০ ডিসেম্বর ২০২৩  

নেত্রকোণায় স্ত্রীকে নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে দ্বিতীয় স্বামীকে আলী হোসেনকে ছুরিকাঘাতে গুরুতর জখম করার ঘটনা ঘটেছে। তাকে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
রোববার সকালে এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রথম স্বামী নাজমুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে, শনিবার দুপুরে জেলার মোহনগঞ্জ পৌরশহরে এ ঘটনা ঘটে। আহত দ্বিতীয় স্বামী আলী হোসেন উপজেলার পুটিউগা গ্রামের আবুল মিয়ার ছেলে।

আর অভিযুক্ত নাজমুল ইসলাম উপজেলার সুয়াইর গ্রামের হককু মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, নাজমুল মাদকাসক্ত হয়ে তার স্ত্রীর সঙ্গে অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন। এর মধ্যে নাজমুলের স্ত্রী আলী হোসেনের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়ান। একপর্যায়ে আলী হোসেনকে বিয়ে করে সংসার শুরু করেন। সেখানেও বনিবনা না হওয়ায় কয়েক মাস আগে আবার প্রথম স্বামী নাজমুলের কাছে ফেরত আসেন ঐ নারী। নাজমুলের সঙ্গে পুনরায় সংসার শুরু করেন। এ নিয়ে দ্বিতীয় স্বামী আলী হোসেন ও প্রথম স্বামী নাজমুলের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। তাদের মধ্যে ক্যেকবার হাতাহাতিও হয়েছে। শনিবার দুপুরে শহরের খাদ্য গুদামের সামনের রাস্তায় পেয়ে আলী হোসেনকে মারধর ও ছুরিকাঘাত করে নাজমুল।

এ সময় দৌড়ে একটি চালের দোকানে গিয়ে আশ্রয় নিলে সেখানে গিয়ে তাকে ফের মারধর ও ছুরিকাঘাত করা হয়। ছুরিকাঘাতে আলী হোসেন কানের কাছে গুরুতর জখম হন। পরে স্থানীয়রা আলী হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে মমেক হাসপাতালে পাঠান। এদিকে খবর পেয়ে নাজমুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

রাতে আহত আলী হোসেনের বাবা আবুল মিয়া বাদী হয়ে এ ঘটনায় থানায় হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন। এতে নাজমুলকে প্রধান আসামি করা হয়।

মোহনগঞ্জ থানার এসআই কানাই লাল চক্রবর্তী জানান, স্ত্রী নিয়ে দ্বন্দ্বে জেরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এ বিষয়ে তদন্ত করে বিস্তরিত জানা যাবে। জখমের ঘটনায় করা মামলায় নাজমুলকে গ্রেফতার দেখিয়ে রোববার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।