• সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৯ ১৪৩১

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে: রাষ্ট্রপতি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা নেই: প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন

দুইদিনের রিমান্ডে ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর শাখার পাশেই শাখার গণিত শিক্ষক মুরাদ হোসেন সরকার দুইদিনের রিমান্ডে আছেন। কোচিং সেন্টারের নামে দীর্ঘদিন ধরেই অপকর্ম করে আসছিলেন তিনি।

যৌন নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেপ্তার মুরাদ হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুদিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে তদন্ত কর্মকর্তা লালবাগ থানার এসআই ফাইয়াজ হোসেন সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে মহানগর হাকিম জাকী আল ফারাবী দুদিন রিমান্ডের আদেশ দেন। এ সময় আইনজীবী শফিকুল ইসলাম দীপু ও আরও কয়েকজন তার রিমান্ড আবেদন বাতিল করে জামিনের আবেদনের ওপর শুনানি করেন।

শিক্ষকরা কোচিং-প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না গতকাল নির্দেশনা দিয়েছে ভিকারুননিসা কর্তৃপক্ষ। নির্দেশ না মানলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কেকা রায় চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, আপাতত শিক্ষকদের সব ধরনের কোচিং-প্রাইভেট বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কেউ অমান্য করলে সরকারি বিধি অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর শাখা যে ভবনে, তার একটি ভবন পরেই ৯তলা একটি ভবন। রাস্তা থেকেই সেখানে টানানো বেশ কয়েকটি কোচিং সেন্টারের ফেস্টুন চোখে পড়ে। ছোট একটি গেট দিয়ে ঢুকলে কেয়ারটেকার কামরুল ইসলাম ভবনের ভেতর দিয়ে আরেকটি ভবনের তৃতীয় তলায় নিয়ে যান। সেখানেই বাঁ পাশের প্রথম ফ্ল্যাটটি মুরাদ হোসেন সরকারের কোচিং।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভাড়া করা ওই ফ্ল্যাটে মাধ্যমিক শ্রেণির শিক্ষার্থীদের কোচিং করান তিনি। তিন কক্ষের মধ্যে দুটিতে পাঠদান চলে। ফ্ল্যাটের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত প্রথম কক্ষটি কিছুটা বড়। মাঝখানেরটি তুলনামূলক ছোট। একদম শেষ মাথার কক্ষটিতে গুটিকয় বেঞ্চ রাখা। কোচিংয়ে ক্লাস নিতে নিতে ক্লান্ত হয়ে গেলে সেখানেই বিশ্রাম নিতেন শিক্ষক মুরাদ। এখানেই কৌশলে শিশু শিক্ষার্থীদের ডেকে নিয়ে শ্লীলতাহানি করতেন।

লালবাগ থানার ওসি মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন গণমাধ্যমকে বলেন, থানার এক এসআই তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্ত শিক্ষক পরিচালিত কোচিংয়ে যান। সেখানে গিয়ে ফ্ল্যাটটি বন্ধ পান। এরপর মালিক ও আশপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন। তদন্ত চলমান থাকবে।