• বুধবার ০৭ জুন ২০২৩ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৪ ১৪৩০

  • || ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন

সব সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ-সুষ্ঠু হবে: ওবায়দুল কাদের

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৪ মে ২০২৩  

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গাজীপুরসহ সব সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। নির্বাচনে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। কীভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হয় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তা দেখিয়ে দেওয়া হবে।
তিনি বলেন, সব কয়টি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। কেউ আসুক বা না আসুক এ ধারা আগামী জাতীয় নির্বাচনেও অব্যাহত থাকবে। এই নির্বাচনে বাধা দিতে আসলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ করা হবে।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এ সমাবেশ আয়োজন করে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি চায় সংঘাত, অস্থিতিশীলতা, অশান্তি এবং রক্তপাত। আর আওয়ামী লীগ চায় বাংলাদেশে গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। আমরা নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই।

বিদেশি পর্যবেক্ষকদের নির্বাচন পর্যবেক্ষণের আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকর বলেন, বিদেশি পর্যবেক্ষকদের নির্বাচনে আহ্বান করা হবে। কীভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হয় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তা দেখিয়ে দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার মিশনে মাঠে নেমেছে বিএনপি। এটাই তাদের এক দফা। ১৪ বছরে জনগণের সাড়া না পেয়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চিরতরে স্তব্ধ করে দিতে ষড়যন্ত্রের পথে নেমেছে বিএনপি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশের মানুষ বুঝেছে আওয়ামী লীগ কর্মীদের অনুভূতি। ৭৫ আর ২০২৩ এক নয়। বিএনপির এটা অনুধাবন করা উচিত। সারাদেশ গর্জে উঠেছে। শেখ হাসিনার ওপর হামলা হলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা চুপচাপ বসে থাকবে না।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ ও আফম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির প্রমুখ।