• মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪৩১

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে: রাষ্ট্রপতি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা নেই: প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন

বুয়েটকে জঙ্গি রাজনীতির কারখানা বানানোর প্রমাণ পেলে অ্যাকশন

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৩১ মার্চ ২০২৪  

ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করার নামে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়কে (বুয়েট) জঙ্গি রাজনীতির কারখানায় পরিণত করার প্রমাণ পেলে সরকার অ্যাকশনে যাবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রোববার (৩১ মার্চ) রাজধানীর তেজগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের ঢাকা জেলা কার্যালয়ে চট্টগ্রাম বিভাগীয় মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি।

বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ। এই অবস্থায় মধ্যরাতে বুয়েট ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেনসহ শীর্ষ নেতাদের প্রবেশের প্রতিবাদে বিক্ষোভ আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা। তারা পরীক্ষা বর্জন করে গতকাল দ্বিতীয় দিনের মতো সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা বিক্ষোভের পর, পাঁচ দফা দাবিতে রোববার (৩১ মার্চ) আবার বিক্ষোভের ঘোষণা দেন।

বুয়েটে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বুয়েটে আবরার হত্যায় কাউকে ছাড় দেয়া হয়নি। বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডে নেতাকর্মীদের দণ্ড হয়েছে, কাউকে ছাড় দেয়া হয়নি। বুয়েটের ঘটনাও তদন্ত চলছে।’

কিন্তু ছাত্র রাজনীতি বন্ধের নামে ক্যাম্পাসকে জঙ্গি রাজনীতির কারখানায় পরিণত করার প্রমাণ পেলে সেক্ষেত্রে সরকার ব্যবস্থা নেবে বলে জানান তিনি।

গত চার বছর ধরে বুয়েটে নিষিদ্ধ ছাত্র রাজনীতি, বন্ধ রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনও। এরই মধ্যে ২৮ মার্চ মধ্য রাত থেকে হঠাৎ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বুয়েট। ক্যাম্পাসে রাজনীতির বীজ বপনের চেষ্টা হচ্ছে এমন অভিযোগে শুক্রবার আন্দোলনে নামেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ছয় দফা দাবিতে শহীদ মিনারের পাদদেশে অবস্থান করেন তারা।

দ্বিতীয় দিন শনিবার ১১টায় আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে আল্টিমেটাম দেয়া হয়। নিয়ম ভাঙার দায়ে ২১ ব্যাচের পুরকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী ইমতিয়াজ রাব্বিকে স্থায়ী বহিষ্কার সময় বেধে দেয়া হয় দুপুর ২টা পর্যন্ত।

এরপর শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেন বুয়েটের প্রশাসনিক ভবনের সামনে। বেলা সাড়ে বারোটার দিকে তীব্র গরমে অসুস্থ বোধ করতে থাকেন তারা। অবশেষে দ্বিতীয় দিনের আন্দোলনের সমাপ্তি টানা হয়। তবে রোববার সকাল থেকে আরও কঠিন আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন।

একই দিন অভিযোগের তীর ঘুরিয়ে দিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আরেকটি অংশ সরব হয়েছে বুয়েট ক্যাম্পসে। তাদের দাবি, সাধারণ শিক্ষার্থীদের আবেগ কাজে লাগিয়ে বুয়েটে নিজেদের মৌলবাদী স্বার্থ কায়েম করতে ব্যস্ত হিজবুত তাহরীর ও ছাত্র শিবির। জাতীয় দিবস সামনে আসলেই নানা অজুহাতে উস্কে দেয়া হয় সাধারণ শিক্ষার্থীদের।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে বুয়েটের উপাচার্য ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার জানান, ৬ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। ৮ তারিখের মধ্যেই প্রতিবেদন পাওয়া যাবে। শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিতে সময় প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় সংশ্লিষ্টতা মেলে ছাত্রলীগ কর্মীদের। এরপর শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবির ভিত্তিতে ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধ করা হয় ছাত্ররাজনীতি।

রোববার বুয়েট ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন ওবায়দুল কাদেরও। অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, ৫৩ বছর পরও বিতর্ক চলছে কে স্বাধীনতা এনেছে! নিজের জীবনকে উৎসর্গ করেছেন বঙ্গবন্ধু। স্বাধীনতার ঘোষণা পত্রের পাঠক ঘোষক হতে পারে না। ৭০ এর নির্বাচনের ম্যান্ডেট পেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। সেই হিসেবেও তারই তো ঘোষণা করার কথা।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে আইয়ুব খান যেমন কথা বলতো তেমনি বিএনপি ভারতের বিরুদ্ধে বলছে।’

আসন্ন স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ থাকবে না উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ’এমপি মন্ত্রীদের বিবেকের কাছে ছেড়ে দিলাম। আওয়ামী লীগ কর্মীরা চায়ের দোকানে বসে দলের নেতাদের গীবত করে। সব খবরই পাওয়া যায়। নির্বাচনে যে কেউ অংশ নিতে পারবে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে কাউকে ক্ষমতার অপব্যবহার না করার আহ্বান।’