• শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ||

  • অগ্রহায়ণ ২৪ ১৪৩০

  • || ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
বিএনপির পরবর্তী পরিকল্পনা দেশে দুর্ভিক্ষ ঘটানো : প্রধানমন্ত্রী বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী নারীর তালিকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জিডিপিতে বস্ত্র খাতের অবদান ১৩ শতাংশ : প্রধানমন্ত্রী প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীকে বাদ দিয়ে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় : রাষ্ট্রপতি নিউজউইকে নিবন্ধে প্রধানমন্ত্রী প্রথমবার যাত্রী নিয়ে পর্যটন নগরীতে পৌঁছাল ‘কক্সবাজার এক্সপ্রেস’ ক্লাইমেট মোবিলিটি চ্যাম্পিয়ন লিডার অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ুর প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে সহায়তার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর মেয়র হানিফের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ব্যক্তিগত উপাত্ত সুরক্ষা আইনের নীতিগত অনুমোদন

রাজৈরে র‌্যাব পরিচয়ে ছিনতাইকালে গণধোলাই, আহত ৪

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৬ অক্টোবর ২০২২  

মাদারীপুর প্রতিনিধি  মাদারীপুরের রাজৈরে ভুয়া র‌্যাব পরিচয় দিয়ে ৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে চার ছিনতাইকারীকে গণধোলাই দিয়েছে স্থানীয় জনতা। পরে আহত ছিনতাইকারীদের পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার কদমবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেট কার, হ্যান্ডকাপ ও নগদ ২ লাখ ৯২ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

গণধোলাইয়ের শিকার চার ছিনতাইকারী হলেন শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার গোপালপুর গ্রামের জব্বার খার ছেলে আলমগীর খান (৩৫), পটুয়াখালীর গলাচিপা চরকাজল গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে রাসেল মাতুব্বর (৩৪), মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার দত্তপাড়া গ্রামের বাবু মাতুব্বরের ছেলে জসিম মাতুব্বর (৩০) ও কালকিনি উপজেলার আলীনগর গ্রামের মমিন সরদারের ছেলে আয়ুবালি সরদার (৪৫)। আহত চার জনকে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার নারায়ণপুর এলাকার গিয়াস শেখ (৪০) ও তার শাশুড়ি মিনারা বেগম (৫০) বেলা ১১টার দিকে টেকেরহাট বন্দরের উত্তরা ব্যাংকের শাখা থেকে ৫ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। টাকা তুলে একটি ভ্যানে করে তারা গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন। উপজেলার বৌলগ্রামের কাছাকাছি এলে একটি সাদা রঙের প্রাইভেট কার তাদের ভ্যানটি গতিরোধ করে। পরে প্রাইভেট কারে থাকা চার ব্যক্তি নিজেদের র‌্যাব পরিচয় দিয়ে গিয়াস ও মিনারার কাছে ইয়াবা রয়েছে বলে তল্লাসি চালায়। পরে তাদের জোড়পূর্বক ওই প্রাইভেট কারে ওঠানো হয়। এ সময় গিয়াস শেখ ও তার শাশুড়ি চিৎকার শুরু করে। তাদের আত্মচিৎকার শুনে স্থানীয় কয়েকজনের সন্দেহ হলে তারা ধাওয়া করে প্রাইভেট কারটি কদমবাড়ি এলাকায় গিয়ে থামায়। পরে র‌্যাব পরিচয় দেওয়া চার জনের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে প্রাইভেট কারের চালকসহ ৪ ছিনতাইকারীকে আটক করে গণধোলাই দেয় স্থানীয় জনতা। পরে রাজৈর থানার পুলিশকে খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত চার ছিনতাইকারীকে আটক করে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সবুজ বালা বলেন, ‘বৌলগ্রাম থেকে মোবাইলে খবর পেয়েই আমরা কয়েকজ মিলে ওই প্রাইভেট কারটি কদমবাড়ি বাজারে থামানোর জন্য সিগন্যাল দেই। এ সময় সিগন্যাল না মেনে কারটি দ্রুত বেগে চলে যাওয়ার চেষ্টা করে। এই মুহুর্তে মোটরসাইকেল দিয়ে ধাওয়া করে প্রাইভেট কারটি আটক করি। পরে তাদের কাছে র‌্যাবের কার্ড দেখতে চাইলে তারা তালবাহানা করতে থাকে। পরে আমরা ছিনতাইকারীদের ঘিরে ধরলে ওরা ভয়ে সব স্বীকার করে। এরপর ওদের আমরা উত্তম মাধ্যম দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেই।’
এ সম্পর্কে রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন বিকেল ৫টায় বলেন, ‘ভুয়া র‌্যাব পরিচয় দেওয়া ওই চারজন পেশাদান ছিনতাইকারী। তারা এভাবেই মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছে। আজ (মঙ্গলবার) তারা ছিনতাই করতে গিলে স্থানীয়রা চার জনকেই ধরে ফেলে এবং গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে।’ ওসি আরও বলেন, ছিনতাইয়ের কাছে ব্যবহৃত প্রাইভেট কারটিও স্থানীয়রা ভাঙচুর করে। ওই গাড়ি, একটি হ্যান্ডকাপ ও ছিনতাই হওয়া ২ লাখ ৯২ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। এই চক্রের পুরো গ্যাংকে ধরার চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মামলা প্রক্রিয়াধীণ।’