• শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর: আঞ্চলিক ভূ-রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে ফিলিস্তিনসহ দেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায়

সুস্থ থাকতে নরম নাকি শক্ত বালিশে ঘুমাবেন?

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২৪  

রাতে ঠিকমতো ঘুম না হলে সারাদিন ক্লান্তিতে কাটে। আবার কাজের মাঝেও ঘুম পায়। এই সমস্যার সমাধান কিন্তু লুকিয়ে থাকতে পারে আপনার বালিশের মধ্যে। বালিশের গড়ন ঘুম অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করে।

অনেকেই নরম তুলতুলে বালিশ ছাড়া ঘুমাতে পারেন না, আবার কারও কাছে আরামদায়ক শক্ত বালিশ। তবে কোনটি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো তা কি জানেন? তার আগে জেনে নিন সঠিক বালিশে না ঘুমালে কী কী সমস্যা দেখা দেয়-

ঘাড়ে ব্যথা

বালিশ ঠিক সাইজের না হলে আমাদের ঘাড়ে ব্যথা হয়। ফলে ঘাড়ে ব্যথার কারণে মাঝে মধ্যেই ঘুম ভেঙে যায়। কখনো কখনো এই ব্যথা এতটাই অসহ্য হয়ে ওঠে যে, কয়েকদিন পর্যন্ত তা সারতে চায় না।

কাঁধের ব্যথা

শুধু ঘাড়ের ব্যথা নয়, কাঁধের ব্যথাও ভোগাতে পারে। অনেকেই পাশ ফিরে শুতে ভালবাসেন। পাশ ফিরে শোওয়া ঘুমের জন্য়ও ভালো। তবে বালিশ আরামদায়ক না হলে পাশ ফিরে থাকা কাঁধে প্রচণ্ড যন্ত্রণা হতে পারে। ফলে ভালো ঘুম হয় না।

পিঠের ব্যথা

চিৎ হয়ে শুলে এই ব্যথা হতে পারে। বালিশ ঠিকঠাক না থাকলে এই সমস্যা হতে পারে। তাই ব্যথা শুধু যে ঘাড়ে হয়, তা নয়। বরং অন্যান্য বেশ কিছু অঙ্গও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

কোন বালিশে ভালো ঘুম হয়?

কে কীভাবে ঘুমান, তার উপর নির্ভর করে কোন ধরনের বালিশ আপনার জন্য সেরা। প্রায় ৭০ শতাংশ মানুষ পাশ ফিরে ঘুমান। এক্ষেত্রে শক্ত বালিশ নেওয়াই ভালো। বালিশ শক্ত হলে মাথা ও ঘাড়ের মধ্যে সামঞ্জস্য থাকে। তবে বালিশ যেন খুব বেশি উঁচু না হয়। তাহলে শুলে সমস্যা হতে পারে।

যারা চিৎ হয়ে ঘুমান, তাদের অনেকই স্লিপ অ্যাপনিয়াতে ভোগেন। নাক ডাকার অভ্যাসও থাকে তাদের। আবার শ্বাসকষ্টের সমস্যাও হতে পারে। কারণ চিৎ হয়ে শুলে জিহ্বা ভেতরের দিকে চলে যায়।

ফলে শ্বাসনালি বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই চিৎ হয়ে শোওয়ার জন্য শক্ত বালিশ ভালো। এতে শরীরের উপর অংশ একটু উঁচু থাকে, এমন ব্যবস্থা করে নিতে পারলে সবচেয়ে ভালো হয়।