• বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১

  • || ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীকে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প শোনালেন সুবিধাভাগীরা আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার

ওজন কমছে না কিছুতেই, কী কী কারণ থাকতে পারে

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

অনেকেই ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য নানা কাজ করেন। কেউ খাবার কম খান, খেলেও স্বাস্থ্যকর খাবারই শুধু খান। আবার কেউ নিয়মিত শরীরচর্চা করেন। কিন্তু তাতেও কমছে না ওজন? তাহলে অন্তত কয়েকটি কথা মাথায় রাখতে হবে। করাতে হবে কিছু পরীক্ষা। এমনই পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।
দেখে নেয়া যাক, সেগুলো কী কী-

থাইরয়েড পরীক্ষা: থাইরয়েড গ্রন্থির ক্ষরণের উপর শরীরের অনেক কিছু নির্ভর করে। বিশেষ করে ওজন কেমন থাকবে, সেই বিষয়টি। কোনও কাজ করেই যদি ওজন না নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়, তাহলে অবশ্যই থাইরয়েড পরীক্ষা করাতে হবে। এমনই পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।

ইনসুলিন রেজিট্যান্স এবং গ্লুকোজ টলারেন্স পরীক্ষা: ইনসুলিন রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। ইনসুলিনের ভারসাম্য নষ্ট হলে ওজন বাড়তে পারে। তাই এই পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে।

হরমোন পরীক্ষা: নানা ধরনের হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হলে মেদ বাড়তে পারে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শে তাই হরমোনের পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে।

ফুড সেনসিটিভিটি পরীক্ষা: অনেকেরই নানা ধরনের খাবারে অ্যালার্জি থাকে। আবার এমন কেউ কেউ আছেন, যাদের বিশেষ কোনো খাবার খেলে কোনো কারণ ছাড়াই ওজন বাড়ে। এটি পরীক্ষা করলেই ধরা পড়ে।

পেটের স্বাস্থ্যের সমস্যা পরীক্ষা: খাবার হজম করার ক্ষেত্রে পেটের ব্যাকটিরিয়ার কিছু ভূমিকা রয়েছে। পেটের ব্যাকটেরিয়া ঠিকঠাক ভাবে কাজ না করলে ওজন বাড়তে পারে। তাই এই বিষয়টির পরীক্ষাও করানো দরকার।

খাবার নিয়ন্ত্রণ করে বা নিয়মিত শরীরচর্চা করেও অনেকে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন না। তারা সেটির কারণও খুঁজে পান না। এমন কোনো সমস্যা যার সঙ্গেই হোক না কেন, তাকে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। তাহলেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।