• মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪৩০

  • || ২৩ শা'বান ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
বিজিবিদের চেইন অব কমান্ড মেনে কাজ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর এখানে এলেই মনটা ভারী হয়ে যায়- বিজিবি দিবসে প্রধানমন্ত্রী বিশ্বমানের স্মার্ট বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই বিজিবিকে বিজিবি দিবসের কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আব্দুল কাদের জিলানীর (র.) মাজার জিয়ারতে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ নির্বাচনে যথাযথ দায়িত্ব পালন করায় ডিসিদের ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রীর ভোক্তাদের যেন হয়রানি হতে না হয়, সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে বাজারে নজরদারি-মজুত ঠেকাতে ডিসিদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর শান্তিরক্ষা মিশনে অবদান রেখে সুনাম বয়ে আনছে সশস্ত্র বাহিনী যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে

আজ ১২ ফেব্রুয়ারি আলিঙ্গন দিবস

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

চলছে ভালোবাসার সপ্তাহ। আজ ১২ ফেব্রুয়ারি আলিঙ্গন দিবস। আমরা যখন খুশি হই, দুঃখিত হই বা সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করি তখন আমরা অন্যকে আলিঙ্গন করি। আলিঙ্গন সর্বজনীনভাবে স্বস্তিদায়ক। বিজ্ঞানীদের মতে; প্রিয়জনকে জড়িয়ে ধরলে কমে মানসিক চাপ, পাওয়া যায় স্বস্তি। জেনে নিন প্রিয়জনকে বাহুডোরে আটকে ফেলার আরও কিছু উপকারিতা সম্পর্কে। 

  1. যখন কোনও বন্ধু বা পরিবারের সদস্য তাদের জীবনে বেদনাদায়ক বা অপ্রীতিকর কিছুর সাথে মোকাবিলা করছেন, তখন তাদের আলিঙ্গন করুন। বিজ্ঞানীরা বলছেন, স্পর্শের মাধ্যমে অন্য ব্যক্তিকে সমর্থন দিলে সান্ত্বনাপ্রাপ্ত ব্যক্তির মানসিক চাপ কমে যায়। 
  2. আলিঙ্গনের চাপ-হ্রাসকারী প্রভাবগুলো আপনাকে সুস্থ রাখতেও কাজ করতে পারে। ৪০০ জনেরও বেশি প্রাপ্তবয়স্কদের উপর একটি গবেষণায় গবেষকরা দেখেছেন যে আলিঙ্গন করা একজন ব্যক্তির অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে।
  3. আলিঙ্গন আপনার হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হতে পারে। ২০০ জন প্রাপ্তবয়স্কদের উপর করা একটি গবেষণা বলছে, একটি স্নেহপূর্ণ সম্পর্ক হৃদয়ের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হতে পারে।
  4. অক্সিটোসিন আমাদের দেহের একটি রাসায়নিক যাকে বিজ্ঞানীরা কখনও কখনও 'কডল হরমোন' বলে থাকেন। এটির কারণ আমরা যখন অন্য কাউকে আলিঙ্গন করি, স্পর্শ করি বা কাছাকাছি বসি তখন এর মাত্রা বেড়ে যায়। অক্সিটোসিন আনন্দের সঙ্গে সম্পর্কিত একটি হরমোন।
  5. আলিঙ্গন ভয় কমাতে সাহায্য করে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, আলিঙ্গন উদ্বেগ কমাতে পারে। এমনকি একটি নির্জীব বস্তুকে স্পর্শ করলেও কমতে পারে ভয়। যেমন টেডি বিয়ারকে আলিঙ্গন করাও মানুষের ভয় কমাতে সাহায্য করে।
  6. গবেষণা বলছে, কিছু স্পর্শ ব্যথা কমাতে সক্ষম হতে পারে। একটি গবেষণায়, ফাইব্রোমায়ালজিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের ছয়টি থেরাপিউটিক স্পর্শ চিকিৎসা ছিল। প্রতিটি চিকিৎসায় ত্বকে হালকা স্পর্শ করা হয়। অংশগ্রহণকারীরা জীবনের মানের বৃদ্ধি এবং ব্যথা হ্রাস করার কথা জানিয়েছেন। আলিঙ্গন স্পর্শের আরেকটি রূপ যা ব্যথা কমাতে সাহায্য করতে পারে।
  7. বেশিরভাগ মানুষের যোগাযোগ মৌখিকভাবে বা মুখের অভিব্যক্তির মাধ্যমে ঘটে। কিন্তু স্পর্শ হল আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপায় যাতে মানুষ একে অপরকে বার্তা পাঠাতে পারে। আলিঙ্গন একটি আরামদায়ক এবং যোগাযোগমূলক স্পর্শ।