• শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা

৫ লাখ টন গম আসছে মোংলা বন্দরে

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০২২  

বিদেশি ১০ জাহাজে মোট ৫ লাখ টন গম আসছে মোংলা বন্দরে। এরইমধ্যে দুটি জাহাজ বন্দরে ভিড়েছে। খালাস হয়েছে ৪২ হাজার টন গম। প্রতি টন ৪৩০ ডলার দরে কেনা এসব গম বাজারে এলে স্বস্তি ফিরবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। দেশে বছরে গমের চাহিদা প্রায় ৭৫ লাখ টন। এর মধ্যে ৬৫ লাখ টনই আমদানি করতে হয়। যার বেশিরভাগই আসে রাশিয়া, ইউক্রেন ও ভারত থেকে। এছাড়া বুলগেরিয়া, অষ্ট্রেলিয়া, কানাডা থেকেও আমদানি হয় গম।  

চলতি বছরের ১১ মাসে ৪টি জাহাজে মোংলা বন্দর দিয়ে আমদানি হয়েছে ৮৪ হাজার টন গম। নতুন করে রাশিয়া থেকে আমদানি হচ্ছে আরও ৫ লাখ টন। গেল সপ্তাহে বিদেশি দুটি জাহাজ থেকে খালাস হয়েছে ৪২ হাজার টন। 

এছাড়া আগামী সপ্তাহে মোংলায় আসবে আরও একটি চালান।

গমবাহী জাহাজের শিপিং এজেন্টের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ এরফান বলেন, “রাশিয়া থেকে সরকারিভাবে ৫ লাখ টন গম আনার চুক্তি হয়েছে। ইতিমধ্যে দুটি জাহাজে করে আসা ৪২ হাজার টন গম মোংলা বন্দরে খালাস করা হয়েছে।”

চট্টগ্রাম বন্দরে ইউক্রেন-রাশিয়া উভয় দেশেরই গমবাহী জাহাজ আসছে। তবে মোংলা বন্দরে ইউক্রেনের গমের জাহাজ না এলেও রাশিয়া থেকে আসছে বিপুল পরিমাণ গম। জানালেন, এই কর্মকর্তা। 

মোংলা খাদ্য গুদামের সাইলো সুপার অরুপ কুমার মিশ্র বলেন, “চুক্তির মাধ্যমে রাশিয়া থেকে পুরো গম আসলে দেশে বাজার পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে বলে আশা করছি।”

ব্যবসায়ীরা বলছেন, গম ও আটা-ময়দার দাম নিয়ন্ত্রণে সরবরাহ-লাইনে থাকা গম দ্রুত বাজারে ছাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে। পাশাপাশি অব্যাহত রাখতে হবে বিকল্প উৎস থেকে গম আমদানির চেষ্টাও। 

মোংলা বন্দর ব্যবহারকারী ব্যবসায়ী এইচ এম দুলাল বলেন, “ যেসব দেশের সঙ্গে গম আনার সরকারের চুক্তি হয়েছে ওই গমগুলো যদি দ্রুত আমদানি করা হয় তাহলে যে সংকট রয়েছে তা আর থাকবে না।”

ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ শুরুর পর থেকে দেশে আমদানি হওয়া গমের বড় অংশই এসেছে ভারত ও বুলগেরিয়া থেকে।