• বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১

  • || ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীকে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প শোনালেন সুবিধাভাগীরা আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার

ছদ্দবেশে তাবলীগে, ১৪ বছর পর গ্রেফতার হত্যা মামলার আসামি

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৬ মে ২০২৩  

এলজিইডির গাড়িচালক হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত মূল আসামি মোমিনুল ইসলাম ওরফে টিপুকে (৪৩) ১৪ বছর পর গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। টিপু গ্রেফতার এড়াতে প্রথমে ঢাকার বাইরে চলে যান এবং পরে দীর্ঘ সময় তাবলীগের চিল্লায় গিয়েছিলেন। সম্প্রতি রাজধানীর মোহাম্মদপুরে আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

শনিবার (৬ মে) সকালে র‌্যাব-২ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মো. ফজলুল হক এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, ২০০৩ সালের ২০ এপ্রিল রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা সংলগ্ন লালমাটিয়া এলাকায় ইঞ্জিনিয়ার কলোনির একটি ভবনের সামনে জনসমক্ষে এলোপাতাড়ি গুলি করে এলজিইডির মাস্টার রোলে নিযুক্ত গাড়িচালক মো. মিজানুর রহমান ওরফে রিপনকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বড় বোন হিরণ বেগম বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটির দীর্ঘ বিচারিক কার্যক্রম শেষে আসামিদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

তিনি আরও জানান, মামলা হওয়ার পর থেকেই আসামিরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজর এড়িয়ে গ্রেফতার এড়াতে ছদ্দবেশ ধারণ করে।

গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-২ এর একটি দল অভিযান পরিচালনা করে এ হত্যাকাণ্ডের যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মোমিনুল ইসলাম ওরফে টিপুকে গ্রেফতার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে টিপু জানান, ঘটনার পর থেকে গ্রেফতার এড়ানোর জন্য প্রথমে কিছুদিন ঢাকার বাইরে পরে দীর্ঘ সময় ধরে তাবলীগের চিল্লায় গিয়েছিলেন। চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতার বিষয়টিও স্বীকার করেন। তাকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করার কথা জানিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তা ফজলুল হক।