• বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪৩০

  • || ১৭ শা'বান ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
বিশ্বের সম্ভাব্য সকল স্থানে রপ্তানি বাজার ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা জরুরি গভীর সমুদ্র থেকে গ্যাস উত্তোলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার পুলিশ জনগণের বন্ধু, সে কথা মাথায় রেখেই দায়িত্ব পালন করতে হবে অপরাধের ধরন বদলাচ্ছে, পুলিশকেও সেভাবে আধুনিক হতে হবে পুলিশ সপ্তাহ শুরু, উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে পুলিশ নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশপ্রেম ও পেশাদারিত্বের পরীক্ষায় বারবার উত্তীর্ণ হয়েছে পুলিশ জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম

সজীব ওয়াজেদ জয়ের বর্ণনায় পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০২৩  

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকীতে ফেসবুকে আবেগঘন একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন তার দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা। সঙ্গে সেদিনের একটি ভিডিও জুড়ে দিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড পেজে দেওয়া এক পোস্টে সজীব ওয়াজেদ জয় লিখেছেন, ‘সাধারণ মানুষ আর শিশুদের ভালোবাসায় সিক্ত কেমন ছিল ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন? যে ইতিহাস অন্ধকারে ছিল সুদীর্ঘ বছর ধরে।’

সেদিনের বর্ণনা দিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘১৯৭৫ সালের মার্চের ১৭ তারিখ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের পুরো রাস্তা ছিল তাঁর হাজার হাজার সমর্থক, দলীয় নেতাকর্মী আর সাধারণ মানুষের পদচারণায় মুখর। একসময় আমার নানা বঙ্গবন্ধু চলে আসলেন তাঁর বাড়ির গেটের কাছে, সেখানে দাঁড়িয়েই মানুষের ফুলেল শুভেচ্ছা গ্রহণ করছিলেন তিনি। সাধারণ মানুষ আর বাচ্চাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় ও করমর্দন করতে ভোলেননি জনতার নেতা।  

১৭ মার্চ, ১৯৭৫। রাষ্ট্রপতি হিসেবে বঙ্গবন্ধুর অনেক ব্যস্ত একটি দিন ছিল উল্লেখ করে জয় লিখেছেন, ‘দেশের জন্য অবদান রাখা মানুষদের সেইদিন দেওয়া হয় বঙ্গবন্ধু পুরস্কার-১৯৭৪, বিদেশি কূটনীতিকদের সাথে সাক্ষাতের পর পরই বঙ্গবন্ধু ছুটে গেলেন তাকে শুভেচ্ছা জানাতে আসা স্কুলের শিশুদের কাছে। তারা গানে গানে আর কবিতা আবৃত্তি করে বঙ্গবন্ধুকে জানালো তাদের ভালোবাসা। একজন রাষ্ট্রপতি এমন সাদামাটাভাবে মানুষের সঙ্গে মিশে যেতে পারেন, তা না দেখলে বোঝার উপায় নেই।’

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর, সামরিক শাসকেরা বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত এরকম অনেক তথ্য চিরতরে মুছে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল, কিছু ক্ষেত্রে তারা সফলও হয়েছিল উল্লেখ করেন সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি লিখেছেন, ‘শেষ পর্যন্ত এরকম অনেক দুর্লভ ভিডিও বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ উদ্ধার করেছে বিভিন্ন উৎস থেকে, ইতিহাসের অনেক ঘটনা এখন জনসম্মুখে আসছে।’

স্বাধীনতার মাসে বাঙালি জাতির মহান নেতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা।