• শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীকে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প শোনালেন সুবিধাভাগীরা

২৪০ দিনেই কোরআনের হাফেজ শিশু রুহান

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০২৩  

মাত্র আট মাসে সম্পূর্ণ কোরআন হিফজ (মুখস্থ) করেছে আজমল হাসান রুহান নামে সাড়ে ৯ বছর বয়সী এক শিশু। রুহান কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার দক্ষিণ চরটেকী গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মো. আব্দুর রশিদের ছেলে।
রুহান পাকুন্দিয়া পৌর এলাকার চরপাকুন্দিয়া গ্রামের দারুল মা’আরিফ আল ইসলামিয়া মাদরাসার হিফজুল কুরআন বিভাগের বালক শাখার শিক্ষার্থী। এখানেই তিনি পবিত্র কোরআনের হিফজ সম্পন্ন করেছেন। পরিবারে তিন ভাই-বোনের মধ্যে রুহান সবার বড়।

আজমল হাসান রুহানের চাচা মো. শহিদুল আলম জানান, রুহানের বাবা প্রবাসে থাকায় তাদের পরিবারের সব সদস্যদের দেখাশুনা করে আসছেন তিনি। রুহান ৮ মাসে কোরআনের হাফেজ হওয়ায় তাদের পরিবারের সবাই আনন্দিত। ভবিষ্যতে রুহান যেন বিশ্বখ্যাত আলেম হয়ে ইসলাম ও দেশের কল্যাণে কাজ করতে পারে তার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন মাদরাসার শিক্ষকদের প্রতিও।

দারুল মা’আরিফ আল ইসলামিয়া মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রিন্সিপাল মুফতি মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, হিফজুল কোরআন বিভাগে পড়াশোনা শেষ করতে প্রায় তিন বছর সময় লাগে। সেখানে তার সময় লেগেছে মাত্র আট মাস। আল্লাহর অশেষ অনুগ্রহে শিক্ষক ও অভিভাবকদের প্রচেষ্টায় ২৪০ দিনে হিফজ সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছে।

আমাদের অভিজ্ঞতায় আমরা দেখেছি, এই কেন্দ্রিক মেধাবী শিক্ষার্থীরা অত্যন্ত ভদ্র ও শান্ত স্বভাবের হয়ে থাকে। রুহানও এর ব্যতিক্রম হয়নি। আমরা তার জন্য দোয়া করি ও দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই। তাকে আল্লাহ তায়ালা ইসলাম, দেশ, জাতি ও মানবতার খাদেম হিসেবে কবুল করেন।