• সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৬ ১৪২৯

  • || ০৮ রজব ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
সারদায় কুচকাওয়াজে প্রধানমন্ত্রীকে অভিবাদন সারদায় প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শিশুদের জন্য নিরাপদ মাতৃভূমি করতে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ প্রধানমন্ত্রী আরসিসির ৭ উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন আজ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যাচ্ছেন ৪৬০ পুলিশ কর্মকর্তা বিএনপির দুর্নীতি নিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ফেসবুক স্ট্যাটাস রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রী ২৫ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন রোববার ডিজিটালাইজেশনে বাংলাদেশে বিপ্লব ঘটে গেছে : প্রধানমন্ত্রী আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু হবে : বিদায়ি সুইস রাষ্ট্রদূতকে প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে যত অপকর্ম

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৭ জানুয়ারি ২০২৩  

২০০৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি শুধু ঢাকাতেই আওয়ামী লীগের লং মার্চ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ৮ হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছিল বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার। 

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিরোধী দল-মতের যত ব্যক্তিকে গ্রেফতার ও নির্যাতন করা হয়েছে, অতীতে কখনো তা ঘটেনি।

প্রতিটি কারাগারে ধারণ ক্ষমতার থেকে দশগুণ বেশি বন্দি রাখা হয়েছিল। এর মধ্যে বেশিরভাগই ছিল আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থক। বন্দিরা বঞ্চিত হয়েছিল ন্যূনতম মানবাধিকার থেকেও।

এছাড়াও ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে তৎকালীন রাষ্ট্রীয় মদদে হামলা চালায় বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা, যা ছিল বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা। এতে নিহত হন আওয়ামী লীগের ২৪ জন নেতাকর্মী।

বিএনপি-জামায়াতের নৃশংসতা দেখা যায় পূর্ববর্তী বছরগুলোতেও। ২০০১ থেকে ২০০৬ সালেও জনগণের ওপর সন্ত্রাসী হামলা, গ্রেনেড হামলা ও পেট্রোল বোমা হামলা চালায় বিএনপি। বিএনপি-জামায়াতের পেট্রোল বোমা ও অগ্নিসংযোগে মৃত্যু হয় ১৫৩ জন সাধারণ মানুষের। নৃশংস ও নারকীয়ভাবে তারা আহত করে ২ সহস্রাধিক মানুষকে।

আরো জানা যায়, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচনের বিরোধিতা করে খালেদা জিয়া ও বিএনপি-জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের নির্দেশে হাজার হাজার যানবাহন ভাঙচুর করে আগুন দেয় বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা। 

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এত অপকর্মের পরও একটি রাজনৈতিক দল কী করে গণতন্ত্রের নাম মুখে নিতে পারে? তাদের মতে, দেশের রাজনীতি সচেতন মানুষেরাও এ নিয়ে ত্যক্ত-বিরক্ত।