• শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা

‘মায়ের মতো ব্রিটেন ও কমনওয়েলথের জনগণের সেবা করবো’

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২  

মা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অঙ্গীকার নবায়নের কথা বলেছেন নতুন রাজা তৃতীয় চার্লস ফিলিপ আর্থার জর্জ। তিনি বলেন, ‘পুরো রাজপরিবারের পক্ষ থেকে গভীর শোকের অনুভূতি নিয়ে আমি কথা বলছি। মা যে অঙ্গীকার করেছিলেন- সেই একই অঙ্গীকার আমি নবায়ন করতে চাই। রাজত্বের সূচনায় ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ যে অঙ্গীকার করেছিলেন সে অনুযায়ী সম্মান, মর্যাদা এবং ভালোবাসার সঙ্গে ব্রিটেন ও কমনওয়েলথের জনগণের সেবা করবো।’

শুক্রবার ( ৯ সেপ্টেম্বর)  জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।  তার এ ভাষণ সরাসরি টিভিতে সম্প্রচারিত হয়।

৭৩ বছর বয়সী রাজা চার্লস আরও বলেন, ‘রানি এলিজাবেথের মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। আমার প্রিয় মা, আপনি শেষ যাত্রা শুরু করেছেন। এ অবস্থায় আমি কেবল বলতে চাই- আপনাকে ধন্যবাদ।’

তিনি আরও বলেন, ‘রানি নিজে যেমন নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন, ঈশ্বর আমাকে যতটুক সময় দিয়েছেন আমিও এই সময়ে সাংবিধানিক নীতিগুলোকে সমুন্নত রাখার জন্য কাজ করে যাবো।’

প্রসঙ্গত, সত্তর বছর সিংহাসনে থাকার পর রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ বৃহস্পতিবার ৯৬ বছর বয়সে স্কটল্যান্ডের বালমোরাল দুর্গে মারা যান। ১৯৫২ সালে সিংহাসনে আরোহণের পর তিনি বিরাট সব সামাজিক পরিবর্তনের সাক্ষী হয়েছেন। বাকিংহাম প্রাসাদসহ রাজকীয় বিভিন্ন বাসভবনের সামনে শুক্রবার সারাদিন অসংখ্য মানুষ ফুল দিয়ে প্রয়াত রানির জন্য শোক ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করেন। গির্জাগুলোতে ঘণ্টাধ্বনির পাশাপাশি বিভিন্ন শহরে তোপধ্বনি করা হয়।

এদিকে রানির ছেলে রাজা তৃতীয় চার্লসের সিংহাসনে অধিষ্ঠিত হওয়ার মধ্য দিয়ে এখন ব্রিটিশ ইতিহাসের এক নতুন যুগের সূচনা হচ্ছে।