• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন

গোপনে সিল মারার অপসংস্কৃতি টেকাতেই ইভিএমে বিএনপির ভয়: তথ্যমন্ত্রী

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৭ জুলাই ২০২২  

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ভোটকেন্দ্র দখল ও গোপনে সিল মারার অপসংস্কৃতি টিকিয়ে রাখার জন্যই ইভিএমকে ভয় পায় বিএনপি।

বুধবার (৬ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের ইসলামী ব্যাংকিং কার্যক্রম উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রথমত কেউ জোর করে ক্ষমতায় থাকতে পারে না। আবার জোর করে কেউ ক্ষমতায় যেতেও পারে না। যারা জনগণের জন্য রাজনীতি করে তারা জোর করে ক্ষমতায় যাওয়ার কথা ভাবেও না।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান জোর করে ক্ষমতায় গিয়েছিলেন জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, তিনি বন্দুক উঁচিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে দল গঠন করেছিলেন ও জোর করে ক্ষমতায় ছিলেন।

‘আমাদের সরকার জনগণের রায় নিয়েই ক্ষমতায় আছে। পরপর তিনটি নির্বাচনে জয়লাভ করেই আমরা সরকার গঠন করেছি।গত নির্বাচনে বিএনপি ডান-বাম, অতিডান-অতিবাম সবাইকে নিয়ে জোট গঠন করে মাত্র পাঁচটি আসন পেয়েছিলো।’

‘শুধু ইভিএম নয়, বিএনপি তো সবসময় প্রযুক্তিকে ভয় পায়। বেগম খালেদা জিয়া যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, তখন বিনা পয়সায় সাবমেরিন ক্যাবল প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিলো। তিনি তখন বলেছিলেন, এটি বসালে বাংলাদেশের গোপনীয়তা নষ্ট হবে। এই বলে তিনি সেটি প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। অথচ সেই সাবমেরিন ক্যাবল পরবর্তীতে শত শত কোটি টাকা খরচ করে আমাদের বসাতে হয়েছে।’

হাছান মাহমুদ বলেন, দুনিয়ার সমস্ত উন্নত দেশে ইভিএম বা ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের মাধ্যমে ভোট হচ্ছে। ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া এমনকি মালয়েশিয়াতেও হয়। আমার ধারণা, আমাদের দল ইভিএমের মাধ্যমে ভোট করার প্রস্তাব না দিয়ে অন্য কেউ দিলে ওনারা (বিএনপি নেতারা) পছন্দ করতেন।

বিএনপিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, আমরা প্রস্তাব দেওয়ার পর থেকেই তারা এর বিরুদ্ধে কথা বলছেন। তার মানে ওনারা চায়, ভোট কেন্দ্র দখল ও সিল মারা- যেগুলো জিয়াউর রহমান চালু করেছিলেন, সেই অপসংস্কৃতিটা থাকুক। সেই অপসংস্কৃতিকে যদি বন্ধ করতে হয়, ইভিএম ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু তারা এটাকে ভয় পায়।

বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ড. ইঞ্জিনিয়ার রশিদ আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মো. তাজুল ইসলামসহ প্রতিষ্ঠানের পরিচালকরা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।