• শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ২ ১৪২৮

  • || ০৯ সফর ১৪৪৩

মাদারীপুর দর্পন

বন্যায় শিবচরের চরাঞ্চল প্লাবিত, ১৫ শত পানিবন্দী পরিবারকে ত্রাণ

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১  

শিবচর প্রতিনিধিঃ

পদ্মানদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে মাদারীপুর জেলার শিবচরের চরাঞ্চলের অসংখ্য গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে। পদ্মা বেষ্টিতে শিবচরের চরজানাজাত, কাঁঠালবাড়ী, মাদবরচর, বন্দরখোলা ইউনিয়নের শতাধিক গ্রামের কমপক্ষে ২০ হাজার মানুষ পানিবন্দী রয়েছে। এদিকে পানি বৃদ্ধি পেয়ে শিবচর পৌরসভার নলগোড়া এলাকার নিম্নাঞ্চল ডুবে গিয়ে ভেসে গেছে পুকুরের অসংখ্য মাছ।

এদিকে পানিবন্দী এলাকায় ১৫শত পরিবারকে চিফ হুইপ নূর ই আলম চৌধুরীর পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরেই পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলার চরজানাজাত, কাঁঠালবাড়ী, মাদবরেরচর ও বন্দরখোলা ইউনিয়নের শতাধিক গ্রাম বন্যার পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। এছাড়াও আড়িয়াল খাঁ নদের পানি বৃদ্ধি পেয়ে সন্যাসীরচর, দত্তপাড়া, শিরুয়াইল,নিলখী, বহেরাতলা ইউনিয়নের চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন স্থানে প্রবেশ করেছে বন্যার পানি। তলিয়ে গেছে বিস্তৃর্ণ এলাকার ফসলি জমি। পানিবন্দী রয়েছে এসকল এলাকার অসংখ্য পরিবার। চরাঞ্চলের অনেক স্থানে রাস্তা-ঘাট তলিয়ে গিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থায় বিঘ্ন ঘটেছে।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘন্টায় পদ্মা নদীর ভাগ্যকুল পয়েন্টে ৫ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে যার ফলে আড়িয়াল খাঁ নদসহ মাদারীপুরের কয়েকটি নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।। যা আগামী ৫ দিন বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। এছাড়াও নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ার বর্তমানে শিবচরের চরাঞ্চলে পানি বিপদসীমার ৩ ফুট উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এর ফলে উপজেলার নিম্নাঞ্চলের বিস্তৃণী এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পদ্মানদী বেস্টিত শিবচর উপজেলার মাদবরেরচর, কাঁঠালবাড়ী, চরজানাজাত ও বন্দরখোলা ইউনিয়নের প্রায় ৩০ টি গ্রামের ২০ হাজার মানুষের বসতবাড়ি সম্পূর্ণভাবে তলিয়ে আছে। অনেকে ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। বন্দরখোলা এলাকার মালের হাট থেকে কাজিরসূরা বাজার পর্যন্ত পুরো সড়কটি ডুবে আছে পানিতে।

চরজানাজাত ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. বাদশা মিয়া জানান,'গত দুইদিন ধরে পদ্মায় পানি বাড়ছে। চর এলাকার প্রায় সকল বাড়িতেই পানি উঠে গেছে।'

শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন,‘পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদে পানি বেড়ে উপজেলার অনেক অঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজনের মাধ্যমে আমরা সার্বক্ষণিক খোঁজখবর রাখছি।’

মাদারীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতিম সাহা জানান,‘পদ্মানদীতে পানি বেড়ে চরাঞ্চলে বিপদসীমার ৩ ফুট উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া আড়িয়াল খাঁ নদেও পানি বেড়েছে। এদিকে শিবচরের সন্ন্যাসিরচর, বহেরাতলা দক্ষিণ, বন্দরখোলা ও শিরুয়াইল ইউনিয়নের কয়েকটি স্থানে নদী ভাঙন রোধে প্রকল্প চলমান রয়েছে। ভাঙন ঠেকাতে জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে।’