• শুক্রবার   ২০ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:

জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেতে ভুলে গেলে যা করবেন

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২২  

নতুন বিয়ে হওয়ার পর অনেকেই সঙ্গে সঙ্গেই সন্তান নিতে আগ্রহী থাকেন না। আবার অনেকেই একটা বা দুইটা সন্তান হওয়ার পর একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সন্তান নিতে চান না। সেক্ষেত্রে জন্মনিয়ন্ত্রণের বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করেন দম্পতিরা। এক্ষেত্রে অনেক নারীই ভরসা রাখেন জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলে। যা নিয়ম করে প্রতিদিন সেবন করতে হয়।

কিছু বড়ি বা পিল অবশ্যই প্রতিদিন একই সময়ে গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় পিল গ্রহণ সত্ত্বেও গর্ভবতী হয়ে যেতে পারেন। কিছু পিল আছে যা প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে গ্রহণ না করলেও সমস্যা হয় না। তবে নির্দিষ্ট সময়ে পিল গ্রহণ করলে তা অভ্যাসে পরিণত হবে। তাহলে ভুলে পিল না খাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

তবে এমন অনেকেই আছেন যারা নিয়ম মেনে জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেতে ভুলে যান। এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কারণ, আমাদের দেশে বহুল ব্যবহৃত মেথড হচ্ছে পিল। কিন্তু প্রথম সাইড ইফেক্টই হচ্ছে, পিল খেতে ভুলে যাওয়া বা মিসড পিল।

এ ব্যাপারে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের প্রসূতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোসা.আফরোজা সরকার জলি বলেন,  আমরা রোগীদেরকে যখন পিলের পাতা দেই, তখন ঠিক করে নিয়ম-কানুন বুঝিয়ে দিই। প্রথম মাসিকের অন্ততপক্ষে তৃতীয় দিন থেকে পঞ্চম দিনের মধ্যে পিল খাওয়া শুরু করবেন। তারপর প্রতিদিন একই সময় একটা করে পিল খেতে হবে। ২১ দিন খাওয়ার পর বাদ দিতে হবে। কিন্তু কোনো পিল যদি মিস হয় তাহলে প্রথমেই তাদেরকে আমরা বলে দিই- আপনার যখন প্রথম একদিন মিস হলো, পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যখনই মনে পড়বে তখনই খেতে পারবেন। সেই দিনের ডোজটা নির্দিষ্ট সময় খাবে। এটা হচ্ছে একটা পিল মিস হলে।

ডা. মোসা.আফরোজা সরকার জলি বলেন, সাধারণত মাসিকের প্রথম সাত দিনের মধ্যে যদি এরকম একটা পিল মিস হয়, তাহলে যে কোনো সময় খেতে পারে অথবা নির্দিষ্ট সময় খেলেন। কিন্তু কারো যদি দুইটা পিল বাদ পড়ে এবং সেটা মাসিকের সপ্তম থেকে ১৪তম দিনে অথবা ২১তম দিনে হয়, তাহলে সে পিল যখন মনে হবে তখন খাবে। না হলে পরবর্তী দ্বিতীয় দিনে দুইটা পিল একসঙ্গে খাবে এবং তার পরবর্তী সাত দিন অথবা ১৪ দিন পর্যন্ত সে অন্য কন্ট্রাসেপটিভ বিশেষ করে বেরিয়ার মেথড বা কনডম ব্যবহার করবে।

এটা না হলে তারা অনিয়ন্ত্রিত গর্ভ সঞ্চালনের সম্ভাবনা থেকে যায়। আনওয়ান্টেড প্রেগনেন্সি হয়। আনওয়ান্টেড প্রেগনেন্সি থেকে এবরশনের হার অনেক বেশি বেড়ে যায়।

কারো যদি পিল ২১ দিনের পরবর্তী এবং ২৮ দিনের কাছাকাছি সময়ে অথবা শেষের ৭ দিনে কোনো পিল মিস হয়ে যায়, তাহলে সেক্ষেত্রে সে পাতাটা ফেলে দিয়ে অপেক্ষা করতে হবে যে তার মাসিক হয় কি-না। যদি মাসিক হয়, তখন সে আবার নতুন পাতা শুরু করবে।