• রোববার ২১ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৬

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

প্রাইমারি স্কুলেই ঘুমানো যাবে, গুনতে হবে টাকা

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

স্কুলে দীর্ঘ সময় লেখাপড়ার করতে গিয়ে অনেক শিক্ষার্থীই ক্লান্তি অনুভব করে। শিক্ষার্থীদের ক্লান্তি দূর করতে চীনের একটি বেসরকারি প্রাইমারি স্কুল একটি অদ্ভুত পদক্ষেপ নিয়েছে। এবার থেকে শিশু শিক্ষার্থীদের স্কুলেই ঘুমানোর ব্যবস্থা করবে তারা।

 

জানা গেছে, ঘুমের পরিবর্তে টাকা গুনতে হবে অভিভাবকদের। এই অপ্রত্যাশিত পদক্ষেপে ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। সিদ্ধান্তের নেপথ্যের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে অনেকেই।

 

ঘটনাটি ঘটেছে চীনের গুয়াংডং প্রদেশের জিয়েশেং প্রাইমারি স্কুলে। শিক্ষার্থীদের টাকার বিনিময়ে ঘুমাতে দেওয়া সংক্রান্ত স্কুলটির একটি নোটিশের স্ক্রিনশট সম্প্রতি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছে। অভিভাবকদের উদ্দেশে দেওয়া ওই নোটিশে বলা হয়েছে, দুপুরে শিশুদের ঘুমের জন্য স্কুলে তিন ধরনের ব্যবস্থা থাকছে। আগামী বছর থেকে তা চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

 

তিন উপায়ে ঘুমের সুযোগ কী কী, তা নিয়ে আপনারা মনে নিশ্চই আগ্রহ জেগেছে? স্কুলের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, কোনো শিক্ষার্থী যদি নিজের ডেস্কেই ঘুমাতে চায়, তার জন্যে তাকে গুনতে হবে ২০০ ইউয়ান (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৩ হাজার টাকা)। আর কেউ যদি শ্রেণিকক্ষের ভেতর মাদুর বিছিয়ে ঘুমাতে চাইলে গুনতে হবে ৩৬০ ইউয়ান। এছাড়াও কেউ যদি ব্যক্তিগত কক্ষের বিছানায় ঘুমাতে চায় তাহলে ৬৮০ ইউয়ান লাগবে। এমনকি স্কুলে ঘুমের সেশনের সময় শিক্ষার্থীদের দেখাশোনা করার জন্য শিক্ষকরা উপস্থিত থাকবে। তবে ঘুমানোর বিষয়টা বাধ্যতামূলক নয়।

 

চীনা সোশ্যাল মিডিয়াতে এই নতুন ফি সিস্টেমের তীব্র সমালোচনা চলছে। চিনা সোশ্যাল প্লাটফর্ম ওয়েইবো- এর একজন ব্যবহারকারী মন্তব্য করেন, ‘এটা কি রসিকতা? স্কুল শুধু টাকা কামানোর জন্য পাগল হয়ে গেছে।’

 

অন্য একজন ব্যবহারকারী প্রশ্ন করেছেন, ‘এটা হাস্যকর। এরপর স্কুল বাথরুমে যাওয়া বা শ্বাস নেয়ার জন্য ফি নেবে?’ একজন ব্যবহারকারী এই বিষয়ে পোস্ট করেছে, ‘আমি কি একমাত্র ব্যক্তি যে বুঝতে পারছি না কেন ডেস্কে ঘুমানোর জন্য ছাত্রদের অর্থ প্রদান করতে হবে?’