• শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা

আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন!

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২  

গর্তের সব ইঁদুর রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছে! একই সময়ে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না আর্জেন্টিনার সমর্থকদেরও। সমাজে মুখ দেখাতে পারবে না বলে তারা ইঁদুরগুলোর গর্তে ঢুকে পড়েছে। আর এতেই ইঁদুরেরা নিজ আবাসস্থলে থেকে বের হয়েছে!
মঙ্গলবার সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোলের ব্যবধানে আর্জেন্টিনার পরাজয়ের পর এমন কথা বলে উপহাস করছিলেন ব্রাজিলের সমর্থকরা।

তবে আর্জেন্টিনার সমর্থকরাও ছেড়ে কথা বলেননি। তারাও বলছেন ‘আমরা দুই গোল হজম করতে পারছি না। আর তোমরা কীভাবে জার্মানির দেওয়া একে একে সাত গোল হজম করে এখনো কথা বলছো! তোমাদের দেখে সত্যিই আমাদের অনেক কষ্ট হয়!’

ফুটবল বিশ্বকাপের এই মৌসুমে অনলাইন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ প্রতিটি এলাকায় গল্প-আড্ডায় একে অন্যের প্রতি নানা কৌশলে আক্রমণাত্মক আচরণ করছেন দুই দলের সমর্থকরা।

তবে এর ব্যতিক্রম ঘটনা ঘটেছে বগুড়ার গাবতলী উপজেলায়। ওই উপজেলার সুখানপকুর এলাকায় আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের সমর্থকরা এক সঙ্গে আনন্দ মিছিল করেন।  দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন বাড়ানোর জন্য এ আয়োজন করা হয়। এতে প্রায় দুই শতাধিক ফুটবলপ্রেমী অংশ নেন।

বুধবার বিকেলে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল যৌথ ফ্যান ক্লাবের আয়োজনে আনন্দ মিছিল করা হয়। এতে অন্য দলের সমর্থকরাও অংশ নেন। এই মিছিলের উদ্যোগ নেন মো. সাহানুর ইসলাম শাকিল। তিনি সুখানপকুর এলাকার বাসিন্দা।

শাকিল বলেন, আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল না থাকলে ফুটবলের বিশ্বকাপ টুর্নামেন্ট হত রঙবিহীন। দুই দলের একটি না থাকলে দেশে ফুটবল টুর্নামেন্টের আকর্ষণ থাকবে। আমরা চাই ফুটবলের এই বিশ্বকাপের টিকে থাকুক দুই দলই। এতে আমরা বেশিদিন খেলা উপভোগ করতে পারবো। তা না হলে আমাদের আনন্দ-উল্লাসের সমাপ্তি ঘটবে শিগগিরই।