• রোববার   ২৫ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১০ ১৪২৮

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

মাদারীপুর দর্পন

শুধু পদ্মা নয়, আরও অনেক ইলিশই কিন্তু স্বাদে সেরা! জানতেন?

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০২১  

‘ইলিশ’ নামটা খাদ্য রসিক বাঙালির কাছে একটা আবেগ, একটা সুখকর অনুভূতি। এটি এমন মাছ যাকে ভাজা, ঝোল, সরষে বাটা, ভাপা নানা রকম ভাবে খাওয়া যায়। বর্ষার মরসুম মানেই ইলিশ। তবে সাধ্যও একটা বড় ব্যাপার। ইলিশেরও দামও বাড়ছে হু হু করে। কিন্তু ভোজনপ্রিয় খাদ্যরসিক বাঙালি সপ্তাহের পাঁচ দিন নিরামিষ খেয়েও দুটো দিন ইলিশ খেতে বদ্ধপরিকর।

শুধু বাঙালিই নয়, বিভিন্ন জায়গায় মানুষ বিভিন্ন নামে ইলিশ খায়। হিলসা, শ্যাড, মদার, বিম, পাল্লা, পোলাসা, গাঙ্গ, কাজলগৌরী, জলতাপী, মুখপ্রিয়া, চাসকি, চাসিস, মোদেন, পালভা। আবার সিন্ধু অঞ্চলে ইলিশের নাম পাল্লা। গুজরাটে ইলিশকে ডাকা হয় মোদেন ও পালভা নামে। তেলেগু ভাষায় এর নাম পোলাস, তামিলে ওলাম, কন্নড় ভাষায় পালিয়া, মারাঠিতে পলা। ইরাকে এটি স্বুর, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াতে এটি তেরুবক নামে পরিচিত।

ইলিশ বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের স্থানীয় মাছ। তবে পারস্য উপসাগর থেকে শুরু করে পাকিস্তান, ভারত, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সমুদ্র উপকূলে ইলিশ পাওয়া যায়। ওয়ার্ল্ড ফিশের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, বিশ্বের মোট ইলিশের ৬৫ শতাংশ উৎপাদিত হয় বাংলাদেশে। ভারতে ১৫ শতাংশ, মায়ানমারে ১০ শতাংশ, আরব সাগর তীরবর্তী দেশগুলো এবং প্রশান্ত ও আটলান্টিক মহাসাগর তীরবর্তী দেশগুলোতে বাকি ইলিশ ধরা পড়ে।

ইলিশ বাঙালি জীবনের গভারে ঢুকে গিয়েছে, যে কোন শুভ কাজে ইলিশ দেওয়া হত। বাঙলাদেশে নতুন বছর শুরু হয় ইলিশ খেয়ে। অতিথি আপ্যায়নে ইলিশের উপস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ। যে পরিবারে ইলিশের যত বাহারি আয়োজন, সে পরিবারের ততটাই সুখ্যাতি। গঙ্গা ও পদ্মা থেকেই মূলত ইলিশ পাওয়া যায়। সেই সব ইলিশের নামও রয়েছে। আসুন দেখি ওই দুই নদী থেকে পাওয়া ইলিশ কত রকমের ও কী কী?

পদ্মায় তিন রকমের ইলিশ পাওয়া যায়। পদ্মা ইলিশ, চন্দনা ইলিশ ও গুর্তা ইলিশ। পদ্মা ইলিশের পিঠ সবজে রঙের হয়। চন্দনা ইলিশের পিঠ হয় কালচে রঙের আর গায়ে উজ্জ্বল আঁশ থাকে। তবে এদের আকার ছোট হয়। গুর্তা ইলিশের গায়ে আবার কাঁটা থাকে। এরা নদীর মোহনা থেকে ৭ বা ৮ কিলোমিটারের মধ্যে থাকে। এছাড়া পাওয়া যায় খয়রা ইলিশ। অবিকল ইলিশের গড়ন। পেটটাও ঠিক ইলিশের মতোই চওড়া। তবে দামটা আয়ত্বের মধ্যে। দেখতে ছোট ইলিশের মতো হলেও আদতে তা খয়রা। যদিও গঙ্গায় দুই রকমের ইলিশ মেলে। একটির নাম খোকা ইলিশ অন্যটির ইলিশ।