• রোববার   ২৫ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১০ ১৪২৮

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

মাদারীপুর দর্পন

আর্জেন্টিনা সমর্থকদের সঙ্গে তর্কে না জড়ানোর অঙ্গীকার

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২১  

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ফুটবল। আর এই ফুটবল নিয়ে তর্ক-বিতর্কের যেন শেষ নেই। বিশেষ করে সেটা যদি হয় ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মধ্যে, তাহলে তো আর কথাই নেই। ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে দুই দলের সমর্থকদের মারপিটের ঘটনাও ঘটেছে। তবে নওগাঁয় আর্জেন্টিনা সমর্থকদের সঙ্গে তর্কে জড়াবে না এমন অঙ্গীকার করে ২০ টাকার স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করেছে এক ব্রাজিল সমর্থক।

বর্তমানে কোপা আমেরিকান টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল। সেমিফাইনালের ম্যাচ থেকে আমাদের দেশে এই দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়তে দেখা গেছে। কথা কাটাকাটির সঙ্গে মারামারিতেও লিপ্ত হচ্ছেন ফুটবল সমর্থকরা। সর্বশেষ নওগাঁর নিয়ামতপুরে সেই রকমই একটি সংবাদ ফেসবুকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। 

আর্জেন্টিনার সমর্থকদের সঙ্গে তর্কে জড়াবে না বলে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করেছেন এক ব্রাজিল সমর্থক। স্ট্যাম্পে লেখা ওই ব্রাজিল সমর্থক হলেন নিয়ামতপুর সরকারি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল বাকি। গত মঙ্গলবার তার ফেসবুক আইডিতে ২০ টাকার স্টাম্পের উপর নিজ হাতের লেখা অঙ্গীকারনামা পোষ্ট করেন। মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়। 

একইসাথে বুধবার বিকেলে নিয়ামতপুর উপজেলা সদরের একটি সংগীত একাডেমীতে সংবাদ সম্মেলন করে সেই বিষয়টি আরও নিশ্চিত করেন আব্দুল্লাহ আল বাকি।
 
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি আব্দুল্লাহ আল বাকি, নিয়ামতপুর, নওগাঁ। আমি ২০ টাকা মূল্যের স্ট্যাম্পে লিখিতভাবে এই মর্মে অঙ্গীকার করছি যে, এই দুনিয়ায় যতদিন বেঁচে থাকব, ততদিন আর্জেন্টিনা দলের কোনো সমর্থকের সঙ্গে তর্কে জড়াব না। কারণ ওরা কোনো যুক্তিই বোঝে না। এদের আসল উদ্দেশ্য তর্কে জয়লাভ করা, খেলায় নয়।’

ওই অঙ্গীকারনামায় নিজের সদ্য তোলা এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবিও যুক্ত করেন আল বাকি। সাক্ষী হিসেবে রেখেছেন আশিকুজ্জামান নামের আরেক ব্রাজিল সমর্থককে। পরে পরিচিত আর্জেটিনা সমর্থকদের কাছে স্ট্যাম্পের ফটোকপি বিলিও করেন। পোস্ট করেছেন নিজের ফেসবুক আইডিতে।

তিনি আরও বলেন, ছাত্র রাজনীতির সহযোদ্ধা, বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়দের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকলেও ফুটবল খেলার সময় এলে তাদের সঙ্গে মতবিরোধ তৈরি হয়। বার বার বোঝানোর পরেও ব্যর্থ হয়ে আমার এই অঙ্গীকারনামা। যাতে করে আর কখনো তাদের সঙ্গে আমার তর্কে জড়াতে না হয়। তাই এই বিষয়টিই যুক্তি সহকারে বোঝানোর চেষ্টা করেছি আমার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বন্ধুদের। 

এটি অনেকের কাছে পাগলামি মনে হলেও ফুটবলপ্রেমী বা সমর্থকদের জন্য এটি সঠিক কাজ বলে মনে করেন আব্দুল্লাহ আল বাকি।