• শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা

অশ্লীল সংলাপে ভরপুর এক ওয়েব সিরিজ ‘গার্লস স্কোয়াড-২

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০২২  

একটা সময় দর্শক ড্রয়িংরুমে বসেই পরিবার নিয়ে টিভি নাটক দেখতেন। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় ও প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনে এটি এখন ড্রয়িংরুমে সীমাবদ্ধ নেই। ইউটিউবসহ বিভিন্ন অ্যাপে এখন নাটক দেখছে দর্শকরা।

দেশীয় নাটকের কুরুচিপূর্ণ নাম, অশ্লীল দৃশ্য ও সংলাপ এখন যেন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে! ইদানীং তো অনেক জনপ্রিয় তারকার নাটকেও দেখা যায় অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করতে। বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল দৃশ্য দিয়ে দর্শককে আকৃষ্ট করার যেন প্রতিযোগিতা চলছে এই সময়ের অনেক নাট্য-নির্মাতার মধ্যে। এদিকে বেশি ভিউয়ের লক্ষ্যে এসব নাটকে অশ্লীল সংলাপও জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি ‘বঙ্গ’তে নির্মিত হলো ধারাবাহিক সিরিজ ‘গার্লস স্কোয়াড-২’। প্রথমে এটি ২০২১ সালে ইউটিউবে আসে।  এতাই জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে, ২০২২ সালে  তার ২য় সিজনও এসেছে। তবে বাস্তবতা হলো, সিরিজটির কলাকুশলীরা নষ্টামির সর্বোচ্চ সীমা অতিক্রম করছে। এ ড্রামা-সিরিয়ালের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন সামিরা খান মাহি, রুকাইয়া জাহান চমক, নাবিলা বিনতে ইসলাম, স্বর্ণলতা, জারিন তাসনিম অন্তরা, সেমন্তী সৌমি ও গুরুত্বপূর্ণ দুটি পুরুষ চরিত্রে রয়েছেন হালের অভিনেতা মারজুক রাসেল ও চাষী আলম।

সিজন টু’তে যুক্ত হয়েছেন তানিয়া বৃষ্টি ও অনিন্দিতা মিমি। অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয় ও জাহের আলভী। পরিচালনা করেছেন মাইদুল রাকিব। প্রশ্ন হলো, এসব নির্মাণ কি বাঙালি সংস্কৃতির সাথে মানায়? অবশ্য অশ্লীলতা এখন বাজারে খুবই সস্তা ও সহজলভ্য। সংস্কৃতির মূল্যবোধ থেকে সরে গিয়ে আধুনিকতার নামে এমন বাজে দৃশ্যায়নের সিরিজ নির্মাণ চলতে থাকলে বিষয়টি নিয়ে অবশ্যই সংশ্লিষ্টদের ভাবা উচিত। বিশেষ করে সরকারের নীতিনির্ধারক মহলকে এখনি এ বিষয়ে দৃষ্টি দেওয়া উচিত। দেশের প্রচলিত আইনের মাধ্যমে এমনসব  নোংরা সিরিজ নির্মাণ বন্ধ করতে হবে। তা না হলে একসময় আমাদের সমাজ হবে নাটকশূন্য! আমরা নিশ্চয়ই এমন অবস্থায় ফিরে যেতে চাই না।

আর তাদেরকে ধিক্কার, যারা এসব নির্মাণ  করেছেন এবং যাদের এতে সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। সবশেষে বলতে হয়, ‘গার্লস স্কোয়াড’  হচ্ছে বাঙালির রুচির যে দুর্ভিক্ষ চলছে তার ব্যারোমিটার।