• মঙ্গলবার   ১৬ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৮ মুহররম ১৪৪৪

মাদারীপুর দর্পন

প্রভাসের পাঁচটি সিনেমার খরচ ১,৫০০ কোটিরও বেশি!

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২২  

দক্ষিণের সুপারস্টার প্রভাস। এর মাঝে বলিউডেও পাকাপুক্ত করে ফেলেছেন নিজেকে। বাহুবলি সিনেমার পর বিশ্বজুড়ে পেয়েছেন প্রশংসা। শোনা যাচ্ছে আগামী দুই বছর নাকি দম ফেলার ফুরসত নেই এই তারকার। সুপারস্টার প্রভাসের হাতে রয়েছে পাঁচটি বিগ বাজেটের সিনেমা। প্রযোজকেরা সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও সেগুলো দেখানো হবে।

তেলেগু, কন্নড় ভাষার পাশাপাশি হিন্দি ভাষাতেও মুক্তি পাবে এসব সিনেমা। শোনা যায়, এসব সিনেমার সব মিলিয়ে খরচ নাকি দে়ড় হাজার কোটিরও বেশি। এসব খরচের কথা সামনে আসতেই অনেকে বলছেন যে, তবে পাঁচটির মধ্যে একটি  করতে কত টাকা পারিশ্রমিক হেঁকেছেন প্রভাস?

সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য যে পরিমাণ পারিশ্রমিক নিচ্ছেন তা শুনলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য হবে আপনার। সাধারণত এক একটি সিনেমার জন্য ১০০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নেন প্রভাস। তবে সন্দীপ রেড্ডি বাঙ্গার ‘স্পিরিট’ সিনেমায় তা আরও ৫০ কোটি টাকা বাড়িয়েছেন।

এক একটি সিনেমার জন্য প্রভাস বর্তমানে ১৫০ কোটি রুপি হাকিয়ে নিচ্ছেন। সন্দিপ রেড্ডি পরিচালক হিসেবে তুলনামূলক ভাবে আনকোরা। তবে সফল বটে। প্রথম সিনেমা তেলুগুতে ‘অর্জুন রেড্ডি’। এর পরেরটি অবশ্য হিন্দিতে। তা-ও আবার ‘অর্জুন রেড্ডি’-র রিমেক  ‘কবীর সিং’। সেটিও তুমুল সফল।

শোনা যাচ্ছে স্পিরিট সিনেমায় প্রভাসের সঙ্গে রোমান্স করবেন বলিউড বেবো কারিনা কাপুর খান। তবে হিন্দি এবং তেলুগু ছাড়াও তামিল, মালয়ালম, কন্নড়, জাপানি এবং কোরীয় ভাষাতেও এর সংলাপ শুনতে পারবেন প্রভাস-ভক্তেরা!

‘বক্স অফিস ইন্ডিয়া’নামে একটি ওয়েবসাইটের দাবি, ২০১৫ সালে ভারতের ১৬০০ সিনেমা হলে দেখানো হয়েছিল প্রভাসের ‘বাহুবলী: দ্য বিগিনিং’। এস এস রাজামৌলির ওই সিনেমাটি প্রথম সপ্তাহান্তেই ৩০ কোটি টাকার বেশি মুনাফা করেছিল।

‘বাহুবলী’ সিনেমার পর প্রভাসের দোরগোড়ায় যে প্রযোজকদের লম্বা লাইন পড়ে যাবে, তা স্বাভাবিক। তবে সবাইকে তো একসঙ্গে খুশি করতে পারা যায় না! তাই বেছে বেছে কয়েকটি ফিল্মে কাজ করা স্থির করেন তিনি।