• শনিবার ২০ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৬

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

ফরিদপুরে বিএনপির ১২ নেতাকর্মী কারাগারে

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ফরিদপুরে বিএনপির ১২ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। রোববার ফরিদপুর জেলা ও দায়রা জজ আকবর আলী এ নির্দেশ দেন।
কারাগারে পাঠানো নেতারা হলেন- আলফাডাঙ্গা পৌর বিএনপির আহ্বায়ক রবিউল হক রিপন, সদস্য সচিব খোশবুর রহমান খোকন, যুগ্ম আহ্বায়ক কামরুল ইসলাম দাউদ, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক আব্দুল্লা আল মিলন, নজরুল ইসলাম, মুন্নু শেখ, হেমায়েত শেখ, হেমায়েত হোসেন মৃধা, সাজ্জাদ হোসেন, সৈয়দ মাইনুল হক, ফয়সাল সরদার ও মফিজুর রহমান।

জানা গেছে, গত ৩০ জুলাই রাতে বিএনপির মিছিল থেকে পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগে বিএনপির ২৪ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে মামলা করে পুলিশ। এ মামলায় অজ্ঞাত আরো ৫০-৬০ জনকে আসামি করা হয়।

আলফাডাঙ্গা থানার এসআই রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৩১ জুলাই ফরিদপুরে বিএনপির জনসমাবেশে যোগ দিতে আগের দিন রাতে আলফাডাঙ্গায় সরকার বিরোধী একটি মিছিল বের করা হয়। রাত সোয়া ৯টার দিকে মিছিলকারীরা আলফাডাঙ্গা লোকাল বাসস্ট্যান্ডের কাছে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এছাড়া সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালানো হয়।

এ মামলায় এজাহারভুক্ত ১৫ জন গত ৭ আগস্ট হাইকোর্ট থেকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন নেন। হাইকোর্ট ৬ সপ্তাহের জামিন দিয়ে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন। হাইকোর্টের আদেশ মেনে রোববার বিএনপির ১৫ নেতাকর্মী ফরিদপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন।

বয়স বিবেচনায় রিজাউল ইসলাম, আলমগীর হোসেন ও হাদী রতনের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত। অন্যদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।