• শনিবার ২০ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৬

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

নম্বর কমিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করেন তারা

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০২৪  

চট্টগ্রামে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে মো. রকিব উদ্দিন (৩৫) নামে এক স্কুল শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুরে নগরের কোতোয়ালি থানার সেন্ট স্কলাস্টিকা বালিকা স্কুল অ্যান্ড কলেজ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার রকিব উদ্দিন ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক।

এর আগে সকালে এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা। এতে রকিব উদ্দিনের পাশাপাশি একই স্কুলের আরেক শিক্ষক সুরজিত পালকে আসামি করা হয়। বর্তমানে সুরজিত পলাতক রয়েছেন।

ভুক্তভোগীর মায়ের দায়ের করা মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ঘটনার শিকার ছাত্রী পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে। চতুর্থ শ্রেণির বিজ্ঞান বিষয়ের ক্লাস নেওয়া শিক্ষক মো. রকিব উদ্দিন ও পঞ্চম শ্রেণির ক্লাস নেওয়া সুরজিত পালের সঙ্গে ২০২৩ সালে ওই ছাত্রীর পরিচয় হয়। এরপর থেকে ওই দুই শিক্ষক বিভিন্ন ধরনের কথাবার্তা বলে কৌশলে বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ তলার বাথরুমের পাশে নিয়ে ওই ছাত্রীর শরীরের বিভিন্ন অংশে স্পর্শ করার চেষ্টা করে আসছিল। ওই ছাত্রী শিক্ষকদের কথামতো স্থানে না গেলে তারা তাকে ক্লাসে বিভিন্ন ধরনের বকা-ঝকা করত এবং পরীক্ষায় নম্বর কমিয়ে দেওয়ার ভয় দেখাত।

দুই শিক্ষকের কু-প্রস্তাবে প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ভুক্তভোগী ছাত্রীকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করতেন অভিযুক্তরা। এ ছাড়া, দুই শিক্ষক তাদের ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর থেকে ভুক্তভোগীর মোবাইল নম্বরে ফোন করে বিভিন্ন ধরনের আজেবাজে কথা বলতেন।

সর্বশেষ গত ৯ জুন সকাল ১০টা ১০ মিনিটের দিকে টিফিন বিরতি দিলে ভুক্তভোগী ছাত্রী বাথরুমে যাওয়ার সময় শিক্ষক মো. রকিব উদ্দিন ও সুরজিত পাল কৌশলে তাকে স্কুলের ৬ষ্ঠ তলার বাথরুমের পাশে নিয়ে যান। তখন দুই শিক্ষক ছাত্রীর শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি করে।

মামলার এজাহারে ভুক্তভোগীর মা উল্লেখ করেন, শিক্ষকদের এমন আচরণে আমার মেয়ে ভীত হয়ে চিৎকার করার চেষ্টা করলে দুই শিক্ষক বিষয়টি কাউকে না জানাতে বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করে এবং কৌশলে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়। ওইদিন বেলা ১১টা ৪০ মিনিটের সময় স্কুল ছুটি শেষে বাসায় আসার পর থেকে আমার মেয়ে কান্নাকাটি করতে থাকে। তখন তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে পুরো ঘটনা জানায়।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম ওবায়েদুল হক বলেন, শ্লীতাহানির অভিযোগে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা। এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে স্কুল এলাকা থেকে এক শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরেক শিক্ষককেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।