• বুধবার   ০৬ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২১ ১৪২৯

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

মাদারীপুর দর্পন

পদ্মা সেতু: আধুনিক বাসে স্বস্তিদায়ক যাত্রা হবে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২২  

শিবচর প্রতিনিধিঃ

পদ্মাসেতু চালু হলে আধুনিক বাস নামবে দক্ষিণাঞ্চলের সড়কে। রাজধানীতে যেতে স্বস্তিদায়ক যাত্রা উপভোগ করবেন যাত্রীরা। সেই লক্ষ্যে পরিবহন ব্যবসায়ীদের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

মাদারীপুর থেকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে নামবে প্রায় দেড় শতাধিক এসি ও নন এসি নতুন বাস। এমন পরিকল্পনা রয়েছে পরিবহন ব্যবসায়ীদের। ইতোমধ্যে অধিকাংশ বাসের ফিটিং এর কাজও শেষ হয়েছে। রং-তুলির কাজ চলছে। পরিবহন ব্যবসায় আধুনিকতার ছোঁয়া দিতে পদ্মাসেতুর উদ্বোধনকে সামনে রেখে প্রথম ধাপে অন্তত ১শ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হবে বলেও জানিয়েছেন পরিবহন ব্যবসায়ীরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,পদ্মা সেতু চালু হলে দক্ষিণাঞ্চল থেকে রাজধানী ঢাকায় বিরতীহীন ভাবেই পৌছতে পারবে যাত্রীরা। নির্বিঘ্ন এই যাত্রার জন্য দীর্ঘদিনের অপেক্ষা দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের। যাত্রীদের সুবিধার্থে মাদারীপুর জেলা থেকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে নামবে অন্তত দেড় শতাধিক এসি ও নন এসি আধুনিক নতুন বাস। নতুন বাসের ফিটিং করতে ব্যস্ত সময় পারছেন মাদারীপুরের শ্রমিকেরা। মাদারীপুুর শহরের ১২টি কারখানায় চলছে নতুন বাসের ফিটিং এবং রঙ-চঙের কাজ। সেতু উদ্বোধনের আগেই এই সকল বাসগুলো প্রস্তুত হয়ে যাবে বলে আশা করেন শ্রমিকেরা। পরিবহন ব্যবসায়ী ও বাস মালিক সমিতির নেতারা জানান,‘আধুনিক এবং মান-সম্মত সেবা দিতে পারলে পরিবহন ব্যবসায়ের মোড় ঘুরে যাবে।’

যাত্রীরা জানান,‘দক্ষিণাঞ্চলের মাদারীপুর থেকে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে ঢাকা যেতে একমাত্র বাধা ছিল পদ্মা নদী। ঢাকার কাছের এই জেলা থেকে ঢাকা যাওয়া-আসা ছিল এক ভোগান্তির নাম। কাঙ্খিত পদ্মাসেতু এই বাধাকে দূর করছে। সেতু চালু হলে এক্সপ্রেসওয়ে হয়ে নির্বিঘ্নে ঢাকা পৌছানো যাবে। পথের দূরত্ব মাত্র ১১০ কিলোমিটার। আধুনিক বাস সার্ভিস চালু হলে প্রশান্তি নিয়ে রাজধানী ঢাকা যাওয়া যাবে।’

সার্বিক পরিবহনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আতিকুর রহমান বাবু জানান, পদ্মা সেতু চালুর পর সড়কে কোন ভোগান্তি থাকবে না। যাত্রীদের আরামদায়ক সেবা দিতে সড়কে আধুনিক এসি ও নন এসি বাস নামাবে সার্বিক পরিবহন। বেশকিছু বাস তৈরীও হয়েছে। এছাড়া অন্য বাসগুলোর শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি চলছে।’

চন্দ্রা পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাহিদুজ্জামান অমিত ভূঁইয়া জানান, ‘মাদারীপুর থেকে ঢাকা সড়ক পথে কোন এসি বাস নেই। তাই যাত্রীদের সুবিধার্থে এসি বাস নামানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়ে বাস্তবায়ন চলছে। এতে যাত্রীরা মানসম্মত সেবা পাবে।’

মাদারীপুর জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান হাওলাদার জানান, ‘জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি শুধু বাংলাবাজার (কাঁঠালবাড়ি) ফেরিঘাট পর্যন্ত সেবা দিতো। এখন পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে রাজধানী ঢাকাতেও যান চলাচলের সিন্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এতে বাড়বে আয়ও। পরিবহন খাতে আসবে আধুনিকতার ছোঁয়া।’