• বৃহস্পতিবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৭

  • || ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মাদারীপুর দর্পন

মাদারীপুরে ভাসমান সবজি চাষ কৃষকের আগ্রহ বেড়েছে

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৮ নভেম্বর ২০২০  

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায় ভাসমান বেডে সবজি চাষ গবেষণা সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয়করন শীর্ষক প্রকল্পের কার্যক্রমের অগ্রগতি পরিসীমা ও মূল্যায়নের আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটির সরজমিনে মাঠ পরিদর্শন ও কৃষকদের সাথে মতবিনিময় করে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় ঢাকার যুগ্ম প্রধান মোঃ জামাল আহমেদ। শুক্রবার দিনব্যাপী কালকিনি উপজেলার অন্তর্গত রমজানপুর ইউনিয়নের চর পালরদী গ্রামে ভাসমান বেডে লাউ, শসা, করলা চাষের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন তিনি।

স্বল্প সময়ে এই প্রকল্পে আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ থাকায় এলাকার চাষিদের উৎসাহিত করেন তারা, এ সময় কৃষকরা তাদের ভাসমান চাষের সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরলে তাদেরকে এ চাষে আরো বেশি সরকারি আশ্বাস দেওয়া হয়। পাশাপাশি কালকিনি উপজেলা কৃষি অফিসের এ ধরনের কার্যক্রম  কৃষকদের পতিত জমির সর্বাত্নক ব্যবহার এবং কৃষকদের নিরাপদ পদ্ধতিতে সবজি উৎপাদন আয় বৃদ্ধি ও পাশে থেকে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে।

বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চলে পানিতে ভাসমান ধাপে চারা উৎপাদন ও সবজি চাষ বেশ জনপ্রিয় বেশ কিছুবছর ধরে। এরই ধারাবাহিকতায় কালকিনি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়  নিম্নাঞ্চল অর্থাৎ বিলাঞ্চলে গত কয়েকবছর ধরে ভাসমান বেডে (ধাপ) সবজি চাষের উদ্যোগ নেওয়া হয়। আর ধাপে সবজি চাষ করে এরইমধ্যে সফলতাও পেয়েছেন অনেকে।
ভাসমান সবজী চাষী শাহীন রাঢ়ী বলেন 'এই চাষ অত্যন্ত লাভজনক, এ বছর আমি এ পদ্ধতিতে ভাসমান সবজী চাষে ২২ হাজার টাকা খরচ করে ৬৩ হাজার টাকার লাউ পেয়েছি, আমার দেখাদেখি প্রায় ৫০ জন কৃষক এখন ভাসমান পদ্ধতিতে লাউ চাষ করে লাভবান হচ্ছে।

কালকিনি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিল্টন বিশ্বাস বলেন, 'আমরা কৃষকদের প্রশিক্ষণ দিয়েছি এ ছাড়াও উদ্বুদ্ধকরন ভ্রমনে গোপালগঞ্জ নিয়ে গিয়ে হাতে কলমে শিক্ষা দিয়েছি এখন তারা সফল হচ্ছেন, আমরা কৃষি অফিস থেকে প্রশিক্ষণদান, উন্নতবীজ সরবরাহ, বেড ও বিভিন্ন কৃষি উপকরণ দিয়ে সহায়তা করেছি, আশেপাশের গ্রামের কৃষকেরা এখন তাদের দেখাদেখি ভাসমান চাষে আগ্রহী হচ্ছে।
মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন এই প্রকল্পের পরিচালক বিজয় কুমার বিশ্বাস, বরিশাল কৃষিসম্প্রসারন কর্মকর্তা মোঃ আলিমুর রহমান প্রমুখ।