• বৃহস্পতিবার   ১৩ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৯ ১৪২৭

  • || ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

মাদারীপুর দর্পন
৫৫১

ডা. সাবরিনা গ্রেফতারে দুশ্চিন্তায় রুমিন-শামা!

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০২০  

দেখতে সুন্দর-সুশ্রী হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী এখন বিএনপি নেতৃবৃন্দের হৃদরোগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন! করোনা টেস্টে জেকেজি হেলথ কেয়ারের প্রতারণার অভিযোগে রোববার (১২ জুলাই) দুপুরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর থেকে তার পরামর্শ নেয়া বিএনপি নেতৃবৃন্দের মধ্যে ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও শামা ওবায়েদ এখন চরম দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। কারণ, সাবরিনার সঙ্গে হৃদ্যতার সূত্র ধরে তিনি সম্প্রতি নিজেদের করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা করিয়েছেন এবং ফলাফল এসেছে নেগেটিভ। কিন্তু সাবরিনা গ্রেফতার-কাণ্ডের পর এখন তাদের মধ্যে আতঙ্ক ভর করেছে, তাহলে কি তারাও করোনা পজিটিভ!

দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে, বিনা টেস্টে করোনার রিপোর্ট প্রদান নিয়ে সম্প্রতি ডা. সাবরিনা ও তার প্রতারক স্বামী আরিফ চৌধুরীর মালিকানাধীন জেকেজি প্রতিষ্ঠানের নামে বিস্তর অভিযোগ ওঠে। পরে ওই অভিযোগে
গত ২৪ জুন জেকেজির গুলশান কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে আরিফসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেই ধারাবাহিকতায় ডা. সাবরিনাকে রোববার (১২ জুলাই) গ্রেফতার করা হয়েছে।

কিন্তু তার গ্রেফতারের ঘটনায় মানসিকভাবে চরমভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন বিএনপির সংরক্ষিত সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও দলটির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ। কারণ, তারা নিজেদের হার্ট সুরক্ষিত রাখতে বিভিন্ন সময় নানা রকম পরামর্শের পাশাপাশি বিউটি টিপসও নিতেন। সেই সূত্রে ধীরে ধীরে নিজেদের ভেতর সখ্যতা গড়ে ওঠে। চেম্বারের পাশাপাশি বেশ কয়েকবার তারা একে-অপরের বাসাতেও গিয়েছেন। সম্প্রতি করোনা শনাক্তের পরীক্ষাও করিয়েছেন তারা। ফলাফল এসেছে নেগেটিভ। কিন্তু সাবরিনা ও তার প্রতারক স্বামীর অপকর্ম ফাঁস হওয়ার পর চরম অস্বস্তিতে পড়েছেন তারা। এ নিয়ে শামা ওবায়েদ একাধিকবার ফোনও করেছেন রুমিন ফারহানাকে। তাদের আশঙ্কা, তারা দু’জনাই করোনা পজিটিভ।

তবে বিষয়টি নিয়ে এখনো পর্যন্ত তারা কেউই আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করেননি। দলের অভ্যন্তরে ছড়িয়ে পড়া খবরের প্রেক্ষিতে একটি বিশ্বস্ত সূত্র এই প্রতিবেদককে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এ বিষয়ে দেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, কান টানলেই মাথা আসে। আর এ কারণেই সাবরিনার গ্রেফতারের ঘটনায় দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন বিএনপি দলীয় ও বিএনপি সমর্থিত চিকিৎসকদের সংগঠন ড্যাব নেতৃবৃন্দ। এ থেকে স্বচ্ছভাবে প্রমাণিত হয় যে, সাবরিনা ও তার প্রতারক স্বামীর অপকর্মে বিএনপির মৌন সমর্থন ছিল এবং তাদের থেকে সুবিধাও ভোগ করতো নানাভাবে। তা নাহলে এখন পর্যন্ত কোন আনুষ্ঠানিক বিবৃতি একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে কেন দেয়নি! নিশ্চয়ই তার পেছনে এটিই অদ্বিতীয় কারণ!

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর