বৃহস্পতিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১০ ১৪২৬   ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

মাদারীপুর দর্পন

কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানা : ১০ আসামির অভিযোগ গঠন ৬ ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২০  

রাজধানীর কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে হতাহতের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১০ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল।

আজ মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান ছুটিতে থাকায় ভারপ্রাপ্ত বিচারক মনির কামাল নতুন এ দিন ধার্য করেন। ট্রাইব্যুনালের পেশকার রুহুল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালের ২৫ জুলাই রাজধানীর কল্যাণপুরের ৫ নম্বর সড়কে ‘জাহাজ বিল্ডিং’-এ রাতভর অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। সকালে এক ঘণ্টার মূল অভিযানে ৯ জঙ্গি নিহত হন। ওই ঘটনায় আহত হন রিগ্যান নামে আরও একজন। তারা সবাই নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবির সদস্য বলে জানায় পুলিশ। অভিযানের দু’দিন পর মিরপুর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মো. শাহ জালাল আলম সন্ত্রাসবিরোধী আইনে একটি মামলা করেন। মামলায় ১০ জনকে আসামি করা হয়।

গত ১১ এপ্রিল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের তদন্ত সংস্থা কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ১০ জনকে অভিযুক্ত করে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে চার্জশিট জমা দেন।

চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন- রাকিকুল হাসান রিগ্যান (২১), সালাহ উদ্দিন কামরান (৩০), আব্দুর রউফ প্রধান (৬৩), আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে আবু জাররা ওরফে র‍্যাশ (২০), শরীফুল ইসলাম ওরফে খালেদ ওরফে সোলায়মান (২৫), মামুনুর রশিদ রিপন ওরফে মামুন (৩০), আজাদুল কবিরাজ ওরফে হার্টবিট (২৮), মুফতি মাওলানা আবুল কাশেম ওরফে বড় হুজুর (৬০), আব্দুস সবুর খান হাসান ওরফে সোহেল মাহফুজ ওরফে নাসরুল্লা হক ওরফে মুসাফির ওরফে জয় ওরফে কুলমেন (৩৩) ও হাদিসুর রহমান সাগর (৪০)। এদের মধ্যে আজাদুল কবিরাজ ওরফে হার্টবিট পলাতক রয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ নভেম্বর দেশের ইতিহাসে ভয়াবহতম জঙ্গি হামলা (হলি আর্টিসানে) মামলার আট আসামির মধ্যে সাতজনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। তাদের মধ্যে কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে হতাহতের ঘটনায় করা মামলার ছয় আসামি রয়েছেন।

তারা হলেন- আসলাম হোসেন র‍্যাশ, মো. হাদিসুর রহমান, রাকিবুল হাসান রিগ্যান, মো. আব্দুল সবুর খান, শরিফুল ইসলাম খালেক ও মামুনুর রশীদ রিপন।

এই বিভাগের আরো খবর