• শুক্রবার   ২২ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৯ ১৪২৭

  • || ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মাদারীপুর দর্পন
ব্রেকিং:
১৩৪

করোনায় চরাঞ্চলে বেড়েছে বাল্যবিয়ে

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০২০  

করোনাকালে উদ্বেগজনক হারে চরাঞ্চলগুলোতে বেড়েছে বাল্যবিয়ে। শিক্ষা আর অর্থনৈতিক সংকটে প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগেই ছেলেমেয়েদের বিয়ে দিচ্ছেন বাবা-মা। যাদের বেশির ভাগ নদীভাঙনের শিকার। এতে মাতৃমৃত্যু বেড়ে যাওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাল্যবিয়ে বন্ধে এখনই উদ্যোগ না নিলে চ্যালেঞ্জ হবে এসডিজি লক্ষ্য অর্জনে।

রাজশাহীর পদ্মার পারের সীমান্তবর্তী ভাঙনকবলিত এক দুর্গম গ্রাম চর খিদিরপুর। ছবির মতো সুন্দর এই গ্রামে বাল্যবিয়ে এক মহামারি রোগ। এই মহামারি থেকে বাদ যাচ্ছে না ছেলে শিশুরাও। নদীভাঙনের মতো ভেঙেছে তাদের আলোকিত শৈশব। এই গ্রামের সাহানা খাতুনের বিয়ে হয় সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী থাকা অবস্থায়, বিয়ের এক বছরের মাথায় এক সন্তানের মা।

সাহানা বলেন, স্কুল বন্ধের কারণে মাস্টার আসতে পারেনি বলে বিয়ে দিয়ে দেন বাবা-মা। করোনায় স্কুল বন্ধের ফাঁকে, এই বাল্যবিয়ে কয়েক গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে দীর্ঘসময় ধরে ঘরবন্দি থাকায়। এক মা জানান, চরে মেয়েদের নিয়ে নানান কথা বলে, সে জন্য ছোটবেলায় বিয়ে দিয়ে দিই।

সেভ দ্যা চিলড্রেন প্রকাশিত এক প্রতিবেদন বলছে, করোনার কারণে বাল্যবিয়ের ঝুঁকিতে পড়েছে বিশ্বে পাঁচ লাখেরও বেশি কন্যাশিশু, যা আগামী ২৫ সাল নাগাদ ঝুঁকিতে ফেলবে ২৫ লাখ কন্যাশিশুকে।

চরগুলোতে বাল্যবিয়ে বেড়ে যাওয়ার যাওয়ায় মাতৃমৃত্যু বেড়ে যাওয়ার শঙ্কা প্রকাশ করে বিশ্লেষকরা বলছেন, এর প্রভাব পড়তে পারে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা এসডিজি অর্জনে।

ওয়ার্ড ভিশন পরিচালক টনি মাইকেল বলেন, আমাদের আর্থসামাজিক অবস্থা এমন জায়গা পৌঁছেছে যে বাবা-মায়ের রাতের ঘুম নষ্ট হয়ে গেছে। এ ছাড়া স্কুলে যাওয়ার পথে মেয়েরা ধর্ষণের শিকার হচ্ছেন। আর করোনার কারণে আরও বেশি হচ্ছে।

শিক্ষার সুযোগ আর আর্থসামাজিক উন্নয়ন ছাড়া চরগুলোতে বাল্যবিয়ে রোধ করা চ্যালেঞ্জ বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। অন্যদিকে স্থানীয়রা বলছেন, শুরু করোনার সময়ই এই চরে ৫০ জনের অধীন বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে।

জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর