• মঙ্গলবার   ৩১ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৬ ১৪২৬

  • || ০৬ শা'বান ১৪৪১

মাদারীপুর দর্পন
১৭০

ইসলামে শূকর নিষিদ্ধের বিষয়টি যেভাবে সমর্থন করে বিজ্ঞান

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ২৮ জানুয়ারি ২০২০  

 

ইসলামে শূকর কেন নিষিদ্ধ করা হয়েছে তা ভেবেছেন কখনো? ইসলাম ধর্মে শূকরকে সবচেয়ে অপবিত্র প্রাণী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই প্রাণীকে সবচেয়ে অপবিত্র প্রাণী বিবেচনা করার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যাও রয়েছে। চলুন জেনে নিই বৈজ্ঞানিক কিছু ব্যাখ্যা-

•    সবচেয়ে অপরিচ্ছন্ন প্রাণী শূকর। এরা যে কোনো কিছু খেতে পারে। বিশেষ করে বিভিন্ন ধরনের পোকা-মাকড় ও বিভিন্ন প্রাণীর পচা মাংস খেয়ে থাকে এরা। এমনকি নিজেদের মূত্রও নিজেরা পান করে।

•    অন্য যে কোনো প্রাণীর চেয়ে এদের মাংসে জীবাণু থাকে সবচেয়ে বেশি। ফলে এর মাংস খাওয়া খুবই বিপজ্জনক।

•    এটিই একমাত্র প্রাণী যেটি কখনো ঘামে না। ফলে এর শরীরের সব বিষাক্ত উপাদান মাংসে যুক্ত হয়।

•    এগুলো এতই বিষাক্ত হয় যে, অন্য কোনো ধরনের বিষ প্রয়োগ করে এদের সহজে মারা যায় না। অর্থাৎ, বিষও এদের কাছে কাবু হয়ে যায়।

•    যে কোনো বিষাক্ত সাপ এরা অনায়াসে খেয়ে ফেলতে পারে।

•    অন্য অনেক প্রাণীর মাংস নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় রান্না করলে জীবাণুমুক্ত হয়। কিন্তু শূকরের মাংসের ক্ষেত্রে এমন কোনো নির্দিষ্ট তাপমাত্রা নেই।

•    শূকর ৩০ ধরনের রোগের জীবাণু বহন করে, যেগুলো সহজেই মানুষের শরীরে যেতে পারে।

এগুলো ছাড়াও শূকরের আরও অনেক নেতিবাচক দিক রয়েছে। যার কারণে এই প্রাণী থেকে দূরে থাকার নির্দেশনা দিয়েছে ইসলাম।

ধর্ম বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর