• শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৭

  • || ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

মাদারীপুর দর্পন
২৫৪

আমদানি- রপ্তানিতে চাঙ্গা ভাব

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ১৭ আগস্ট ২০২০  

স্বাভাবিক গতি ফিরছে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের প্রাণভোমরা চট্টগ্রামের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোয়। দেশের অন্যতম পাইকারি বাজার চাক্তাই ও খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীরাও স্বাভাবিক সময়ের মতোই শুরু করেছেন আমদানি-রপ্তানি। ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর নেতাদের দাবি, খুব দ্রুতই ইউটার্ন নেবে দেশের বাণিজ্য। সেপ্টেম্বরের মধ্যে স্বাভাবিক গতিতে ফিরবে বাণিজ্যিক কর্মকান্ড।

চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ‘করোনা প্রাদুর্ভাব পরিস্থিতির সময়ের শুরুর দিকে আমদানি-রপ্তানির যে অবস্থা ছিল, এর চেয়ে বর্তমানের পরিস্থিতি অনেক অনেক ভালো। প্রাদুর্ভাবের ধাক্কা সামলে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা চেষ্টা করছেন স্বাভাবিক সময়ের মতো আমদানি-রপ্তানি করতে। আশা করছি আগামী সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে ব্যবসা-বাণিজ্যে স্বাভাবিক সময়ের মতোই গতি ফিরবে।’

খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ জামাল হোসেন বলেন, ‘অনেক আমদানিকারক স্বাভাবিক সময়ের মতোই পণ্য আমদানি শুরু করেছেন। ক্রেতারাও ধীরে ধীরে বাজারমুখী হচ্ছেন। আশা করছি সেপ্টেম্বরের মধ্যে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জের বাণিজ্যিক কর্মকান্ড পুরোদমে চালু হবে।’ জানা যায়, চট্টগ্রাম ঘিরে চলে দেশের সিংহভাগ অর্থনৈতিক কর্মকান্ড। দেশের অন্যতম পাইকারি বাজার চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ করোনার ধাক্কা সামলে ফের হয়ে উঠছে কর্মচঞ্চল। ব্যবসায়ীরা জানান, করোনা প্রাদুর্ভাব পরিস্থিতি শুরু হওয়ার কিছু দিনের মধ্যে দেশের অন্যতম এ পাইকারি বাজারের ব্যবসায়ী ও ব্যবসা-সংশ্লিষ্ট অনেকে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। এতে ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। অনেক ব্যবসায়ী কমিয়ে দেন আমদানি-রপ্তানি। অনেকে আবার নিজের অনুপস্থিতিতে ম্যানেজার ও স্টাফ দিয়ে পরিচালনা করতে থাকেন ব্যবসা। এতে করে ভয়াবহ ধস নেমে একসময় স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ৮০ শতাংশ কমে যায় বাণিজ্য। লকডাউন শিথিল হওয়ার পর কোরবানি ঘিরে কিছুটা চাঙা হতে থাকে এ বাজার। কিন্তু বন্যা পরিস্থিতির কারণে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্রেতা আসতে না পারার কারণে ফের ধাক্কা লাগে। ব্যবসায়ীদের দাবি, এ মাসের শেষের দিকে থেকে ফের স্বাভাবিক হতে থাকবে বাণিজ্য। তারা আশা করছেন, সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে পুরো গতি পাবে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ। দেশের অর্থনীতির পাইপলাইনখ্যাত চট্টগ্রাম বন্দরে করোনা প্রাদুর্ভাব পরিস্থিতির শুরুতে যে ধাক্কা লেগেছে, তা সামলে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরুতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানিতে কিছুটা ভাটা পড়লেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে আমদানি-রপ্তানি। লকডাউন শিথিল হওয়ার পর থেকে চট্টগ্রাম বন্দরের আমদানি-রপ্তানি ঊর্ধ্বমুখী।

চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব মোহাম্মদ ওমর ফারুক বলেন, ‘করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরুতে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আমদানি কম হলেও ধীরে ধীরে তা বাড়ছে। বর্তমানে করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরুর দিকের চেয়ে বেশি পণ্য আমদানি ও রপ্তানি হচ্ছে।’ খাতুনগঞ্জ আড়তদার কল্যাণ সমিতির সভাপতি সোলায়মান আলম বাদশা বলেন, ‘করোনাকালের বিপর্যয় কাটিয়ে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জে। ক্রেতাদের সমাগমে মুখরিত হয়ে উঠছে দেশের অন্যতম পাইকারি এ বাজার। বর্তমানে স্বাভাবিক সময়ের মতো বেচাকেনা হচ্ছে। আশা করছি এ মাসের শেষের দিকে পুরোদমে চাঙা হবে খাতুনগঞ্জের বেচাকেনা।’

অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর