• শুক্রবার   ২৩ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৭ ১৪২৭

  • || ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মাদারীপুর দর্পন
১৬০

অকাল মৃত্যু ডেকে আনছে যেসব খাবার

মাদারীপুর দর্পন

প্রকাশিত: ৯ জুলাই ২০২০  

প্রতি বছর এক কোটিরও বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে শুধু খাবারের কারণে, এক সমীক্ষায় এমনটাই দেখা গেছে। এমনকি কিছু কিছু খাবার ধূমপানের চেয়েও বেশি প্রাণহানি ঘটায়!

‘দ্যা গ্লোবাল বার্ডেন অফ ডিজেস স্টাডি’ নামের এক গবেষণায় উঠে এসেছে শুধু মাত্র খ্যাদ্যাভ্যাসের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে মারা যাওয়ার মানুষের আনুপাতিক সংখ্যা। গবেষকরা বলছেন, শুধু মাত্র স্থূলতা নয় বরং নিম্নমানের খাদ্যাভ্যাসের কারণে হার্ট অ্যাটাক বা ক্যানসারের মতো জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ।

ওই গবেষণা হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ একটি পর্যবেক্ষণ; যেখানে দেখা হয়েছে কিভাবে বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তে মানুষ মারা যাচ্ছে। বিপজ্জনক খাদ্য হিসেবে যেসব উপাদানের কথা বলা হচ্ছে—

  • ১. অতিরিক্ত লবণ- ৩০ লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ
  • ২. কম দানাদার শস্য খাওয়া- ৩০ লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ
  • ৩. ফলমূল কম খাওয়া- ২০ লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ

আমরা কী সঠিক খাবার সঠিক পরিমাণে খাচ্ছি- এটিই এখন বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিছু খাবার প্রয়োজনের চেয়ে অনেক বেশি খেয়ে ফেলছি, আবার  অনেক সময়ে খাচ্ছিই না। যেমন বাদাম, বীজ, শাক-সবজী, সামুদ্রিক থেকে পাওয়া ওমেগা-৩ এবং আঁশ জাতীয় খাবারের পরিমাণ কম হওয়াটাও মৃত্যুর বড় কারণগুলোর অন্যতম।

বাদাম ও বীজ জাতীয় খাবার মানুষ গড়ে প্রতিদিন দিনে ২৩ গ্রাম কম খাচ্ছে। আবার দুধ খাওয়া উচিত ৪৪৩ গ্রাম অথচ মানুষ গ্রহণ করছে ৭১ গ্রাম। একইভাবে দানাদার শস্য জাতীয় খাবার ১২৬ এর জায়গায় ২৯ গ্রাম খাচ্ছে। মাংস ২২ গ্রাম খাওয়া উচিত হলেও সেটি খাচ্ছে ২৭ গ্রাম, লবণ ৩.২ গ্রামের ওপর খাওয়া উচিত নয় কিন্তু সেটি গ্রহণ করছে ৬ গ্রাম!

অকাল মৃত্যু ডেকে আনতে না চাইলে সুস্থ থাকতে হবে। আর সুস্থ থাকতে পরিমিত খাবার গ্রহণ করতে হবে। যা বর্তমান সময়ে সবচেয়ে চিন্তার বিষয়!

স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর